অ্যাপস্ ব্যবহার করে মোবাইলের আইএমইআই পরিবর্তন করে তারা

0
7
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার আল্লাহ্ করিম মসজিদ মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করে অবৈধভাবে মোবাইল ফোনের আইএমইআই (IMEI) পরিবর্তনের সরঞ্জামাদি, ল্যাপটপ, কম্পিউটার, ডিভাইস উদ্ধারসহ এর সাথে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-২।
সাম্প্রতিককালে রাজধানী ঢাকায় মোবাইল ছিনতাই এর পরিমান বৃদ্ধি পায়। এক ধরণের অসাধু প্রতারকচক্র দীর্ঘদিন যাবৎ কম্পিউটারের সাহায্যে অবৈধভাবে চোরাই মোবাইল ফোনের আইএমইআই পরিবর্তন করে আসছে। উক্ত চোরাই মোবাইল ফোন আইএমইআই পরিবর্তন করে বিভিন্ন পন্থায় বিক্রি করে। বর্ণিত অপরাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে র‌্যাব-২ মোহাম্মদপুর ও পাশর্^বর্তী এলাকায় ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।
এরই ধারাবাহিকতায়, র‌্যাব-২ এর আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার আল্লাহ্ করিম মোবাইল মার্কেটের খান টেলিকম এন্ড মোবাইল সার্ভিসিং নামক দোকানে দীর্ঘদিন যাবত এক অসাধু প্রতারকচক্র কম্পিউটারের সাহায্যে অবৈধভাবে চোরাই মোবাইল ফোনের আইএমইআই পরিবর্তন করে আসছে। উক্ত চোরাই মোবাইল ফোনের আইএমইআই পরিবর্তন করে বিভিন্ন পন্থায় বিক্রি করে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ এর আভিযানিক দল গত ২৩/১১/২০২২খ্রিঃ তারিখে ২২৫০ ঘটিকায় অভিযান পরিচালনার নিমিত্তে উক্ত দোকানে উপস্থিত হলে ১) মোঃ সোহেল খান (৩৩), পিতাঃ-আব্দুল হাকিম খান, থানাঃ-মোহাম্মদপুর, জেলাঃ-ঢাকা, ২) মোঃ ইমরান হোসেন ইমু (২৮), পিতাঃ-মৃত আব্দুল হক, থানাঃ-সাভার, জেলাঃ-ঢাকা এবং ৩) মোঃ রাজিব শেখ (৩৪), পিতাঃ-মৃত হারুন শেখ, থানাঃ লৌহজং, জেলাঃ মুন্সিগঞ্জ’কে কম্পিউটারে মোবাইল ফোনের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনের সময় দেখতে পেয়ে মোবাইল সহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক অনুসন্ধান ও গ্রেফতারকৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আটক হওয়া এই তিন ব্যক্তি ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা চোরাই মোবাইল ফোনের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করাসহ চোরাই মোবাইল ফোন কেনাবেচা করে। তারা বিশেষ ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস এবং অ্যাপস্ ব্যবহার করে যেকোনো মোবাইল ফোনের আইএমইআই (ওগঊও) নম্বর পরিবর্তন করতে পারে। এই কারণে চোরাই মোবাইল ফোন উদ্ধারসহ অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেয়া তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের ভিত্তিতে এই চক্রের সাথে জড়িত অন্যান্য সদস্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
উদ্ধারকৃত মালামাল।
১। ইউএসবি ফ্লাসিং ডিভাইস – ০৫টি।
২। পিসি – ০১টি।
৩। মনিটর – ০১টি।
৪। এইচপি ল্যাপটপ ও ক্যাবল – ০১টি।
৫। এসএসডি ড্রাইভ – ০১টি।
৬। উদ্ধারকৃত টাকার পরিমান – ২৫,৭৯৫/- টাকা।
৭। আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনকারী ডিভাইস এবং বিশেষ ক্যাবল – ০৪টি।
৮। মোবাইল – ০৯টি

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here