গাজীপুরে যাত্রীবাহী বাসে ধর্ষণ,গ্রেফতার ১

0
111
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বান্নারা এলাকায় চলন্ত বাসে শনিবার রাতে চকলেট বিক্রেতা এক কিশোরীকে (১৬) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় জয়দেবপুর থানা পুলিশ সাদ্দাম হোসেন (২২) নামে এক ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে। ধর্ষক শেরপুরের শ্রীবরদী থানার বাগতা এলাকার সুরুজের ছেলে। সে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বাসন এলাকায় ভাড়া থেকে ‘তাকওয়া পরিবহন নামে একটি গণপরিবহনের চালাতেন।
এ ঘটনায় জয়দেবপুর থানায় ভিকটিম বাদী হয়ে দুই জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিমের বাড়ি জামালপুরে। তিনি ঢাকার আশুলিয়ায় থেকে যাত্রীবাহী বাসে ফেরি করে চকলেট বিক্রি করেন।
শনিবার রাত নয়টার দিকে চকলেট বিক্রির উদ্দেশ্যে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা বাসস্ট্যান্ডে আসেন। এ সময় পূর্ব পরিচিত শরীফ হোসেন ও সাদ্দামের কথায় চান্দনা চৌরাস্তার উদ্দেশ্যে তাকওয়া পরিবহন বাসে ওঠেন।
পরে চান্দনা চৌরাস্তায় যাত্রী নামিয়ে খালি বাস নিয়ে আবার কালিয়াকৈরের দিকে রওনা দেয়। বাসটি কালিয়াকৈরের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার ফ্লাইওভারে বাস থামিয়ে ভিকটিমকে কুপ্রস্তব দেয়। ভিকটিম রাজি না হওয়ায় ওই দুইজন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেন।
এসময় ভিকটিম চিৎকার শুরু করলে টহল পুলিশ এগিয়ে আসতে থাকলে ওই দুইজন ওড়না দিয়ে তার মুখ বেঁধে বাস চালিয়ে মৌচাক দিয়ে বান্নারার রাস্তায় ঢুকে এবং নির্জন রাস্তায় শরীফ হোসেন তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে।
পরে বাসটি জয়দেবপুর থানাধীর মেম্বারবাড়ি বাস স্ট্যান্ডের কাছে পৌঁছলে জয়দেবপুর থানার টহল পুলিশ বাস থামার সংকেত দেয়।
এসময় পুলিশ বেরিকেডে বাস থামালে শরীফ দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ বাস থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার এবং সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেফতার করে।
জয়দেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: জাবেদুল ইসলাম জানান, ভিকটিমকে উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
ধর্ষণের ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

10 + fourteen =