টঙ্গী বাজারের ফুটপাত বাবুর দখলে

0
58
728×90 Banner

জাহাঙ্গীর আকন্দ : শিল্প অধ্যুশিত জেলা গাজীপুরের ঐতিহ্যবাহী টঙ্গী বাজার এলাকার ফুটপাত দখল করে দোকান বসিয়ে চাঁদাবাজিতে সক্রিয় একাধিক চাঁদাবাজ গ্রুপ। এদের অন্যতম একজন বিকে বাবু ওরফে কেডা বাবু। তার নেতৃত্বে ফুটপাতের একটি বড় অংশ দখল করে গড়ে উঠেছে অবৈধ অফিস অস্থায়ী দোকান ও বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টার।
এসব অস্থায়ী দোকান ও কাউন্টার বসিয়ে এডভান্স বাবদ হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা। এসব দোকান থেকে দৈনিক ও মাসিক হারে চাঁদা উত্তোলন করেন বাবুর নেতৃত্বাধীন কেডা গ্রুপ। এছাড়াও টঙ্গীর আলোচিত মাজার বস্তি এলাকার মোবাইল চোর সিন্ডিকেটের যাবতীয় চোরাই মোবাইল কেনা বেচার অভিযোগ রয়েছে এই গ্রুপটির বিরুদ্ধে।
সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, কিছুদিন আগেও স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার গাড়ি চালক হিসেবে পরিচিত ছিলেন বাবু। সেই সুবাদে স্বেচ্ছাসেবক লীগের একজন কর্মী পরিচয় দিতেন তিনি। নেতার আস্থাভাজন হয়ে দেখা শোনা করতেন তার ব্যবসার কিছু অংশ। সরকারি দলের নেতার প্রভাব কাটিয়ে জড়িয়ে পড়েন বিভিন্ন অপকর্মে। বিষয়টি ওই নেতার নজরে এলে তাকে দুরে সড়িয়ে দেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ এই নেতা। এরপর গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্থানীয় এক কাউন্সিলর প্রার্থীর হয়ে প্রচার প্রচারণা শুরু করে বাবু। নির্বাচন উপলক্ষে সড়ক জনপদ বিভাগের জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে নির্বাচনী কার্যালয় গড়ে তুলে সে। এরপর থেকে শুরু হয় তার দখল বানিজ্য। তার সমর্থিত প্রার্থী বিজয়ী হওয়ার পর আরো বেপারোয়া হয়ে উঠে বাবু। একে একে ফুটপাতের বেশকিছু স্থান দখল করে অবৈধ ভাবে গড়ে তুলেছেন চাঁদাবাজ চক্র। এছাড়া তার গ্রুপের সদস্যদের বিরুদ্ধে রয়েছে মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের করে চোরাই মার্কেটে কেনা বেচার অভিযোগ। এছাড়াও প্রতি হাটে বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী বিট বসিয়ে চাঁদা উত্তোলন করে কেডা বাবু গ্রুপ।
এবিষয়ে বাবু বলেন, আমি কোনরকম চাঁদাবাজির সাথে জড়িত না। আমার নামে ফুটপাতে দুইটা দোকান চলে। যারা ব্যবসা করে তারা আমার শশুরবাড়ীর আত্মীয়। এছাড়া যে অফিসটি আছে সেটি নির্বাচনকালীন করা হয়েছিল সেটি এখন পরিত্যক্ত।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here