দেশের ১০ ইউনিয়নে বিষমুক্ত সবজি চাষ হচ্ছে

0
115
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক :দেশের ১০ ইউনিয়নে বিষমুক্ত সবজির চাষ করা হচ্ছে। কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ রুহুল আমিন তালুকদার আজ ( ২৩ জানুয়ারী ) শনিবার কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দিতে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন কার্যক্রম, দ্বেবিদ্বার, মুরাদনগর উপজেলা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবায় “সমলয়ে বোরো হাইব্রিড ধান চাষের ব্লক প্রদর্শনী” ও বিভিন্ন কৃষিপণ্যের হাট -বাজার পরির্দশন করেন।
কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের মাঠে উৎপাদিত হবে প্রায় ১২শ’ মেট্রিক টন বিষমুক্ত সবজি। চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের একমাত্র ইউনিয়ন হিসেবে এখানে বিষমুক্ত সবজি চাষ করা হয়েছে। দেশের এরকম ১০টি ইউনিয়নে বিষমুক্ত সবজির চাষ করা হচ্ছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সারোয়ার জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেন। ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের টামটা,বিটমান,বাশরা,ভিকতলা,নয়াকান্দি গ্রামের মাঠে সবজি চাষিরা পোকা-মাকড় দমনের এসব নতুন পদ্ধতি ব্যবহার করছেন।


কৃষি অফিসের সূত্রমতে,অতিমাত্রায় রাসায়নিক সার ও বালাইনাশক ব্যবহারে তৈরি হচ্ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি। দূষিত হচ্ছে মাটি, পানি ও বাতাস। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে জীববৈচিত্র্য। এসব সমস্যা থেকে কৃষক ও পরিবেশকে বাঁচাতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আইপিএম(সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা) প্রকল্পের আওতায় মডেল প্রকল্প হিসেবে বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি চাষ করছে। প্রকল্পের অধীন দেশের ১০টি উপজেলায় আইপিএম মডেল ইউনিয়ন গঠন করা হয়। প্রতিটি আইপিএম মডেল ইউনিয়নের ২৫টি দল রয়েছে। এতে আটজন নারীসহ ২০ জন সদস্য। কিষাণ-কিষাণির সমন্বয়ে মোট ৫০০ জনের দল গঠন করা হয়েছে। ১০০একর জমিতে তারা জৈব কৃষি ও জৈব বালাইনাশক ব্যবহারের মাধ্যমে সবজি উৎপাদন করছেন। সবজির মধ্যে রয়েছে টমেটো, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মিষ্টি কুমড়া,খিরা, লাউ ও স্কোয়াস ইত্যাদি।
মাঠে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে দাউদকান্দি উপজলার ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়ন। মাঠ জুড়ে নানা ফসলের হাসি। জমিতে নিরাপদ সবজি উৎপাদনে কৃষকদেও পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষি কর্মকর্তারা। জমিতে লাগানো হয়েছে সেক্স ফেরোমোন ফাঁদ, হলুদ আঠালো ফাঁদ ও নেট হাউস। এসব সবজি খেতে রাসায়নিক সারের পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে পরিবেশবান্ধব ভার্মি কম্পোস্ট। ক্ষতিকর পোকা-মাকড় দমনের জন্য রাসায়নিক কীটনাশকের পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে জৈব বালাইনাশক। সবজির ভাইরাসবাহিত রোগ দমনে এখানে ১০টি নেট হাউস স্থাপন করা হয়েছে।


টামটা গ্রামের কৃষক মো.ইসমাইল বলেন, ‘ছয় বিঘা জমিতে বিষমুক্ত টমেটো চাষ করেছি। সরকার এ জন্য সব ধরনের কৃষি উপকরণ সরবরাহ করেছে। নিরাপদ সবজি বিক্রির পৃথক বাজার স্থাপন করলে কৃষক উপকৃত হবে।’
উপজেলা উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা সৈয়দ জামান বলেন, কৃষকদের বিনামূল্যে বীজ, সেক্স ফেরোমোন ফাঁদ, জৈব বালাইনাশক ও নগদ অর্থ দিচ্ছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এসব ব্যবহার পদ্ধতির ওপর কিষাণ-কিষাণিদের সাতবার হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।
উপজেলার কেন্দ্রীয় আইপিএম(সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা) ক্লাবের সভাপতি কৃষি সংগঠক মতিন সৈকত বলেন,আমরা বিষমুক্ত ফসল উৎপাদনে ২০বছর আগে থেকে আন্দোলন শুরু করেছি। উপজেলায় আইপিএমের ১৬০টি সংগঠন রয়েছে। দক্ষিণ ইলিয়টগঞ্জ ইউনিয়নের নিরাপদ সবজি উৎপাদন সফল হবে বলে আমরা আশা করি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সারোয়ার জামান বলেন, পরিবেশ বান্ধব কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্প তথা আইপিএম কৃষকদের মধ্যে জনপ্রিয় করতে সরকার এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে। দেশের ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নকে বাছাই করা হয়েছে। আইপিএম পদ্ধতিতে সবজি চাষে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নকে গড়ে তোলা হবে। তিনি আরো বলেন, নিরাপদ সবজি বিক্রির পৃথক বাজার স্থাপন নিয়ে কৃষকরা দাবি জানিয়েছে। ভালো মূল্য না পেলে তারা এই পদ্ধতিতে আগ্রহী হবে না। এই বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলবো। তাছাড়া আমরা স্থানীয় ভাবে মহাসড়কের পাশে শেড করে দেয়ার পরিকল্পনা করছি।
কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ রুহুল আমিন তালুকদার দাউদকান্দিতে আইপিএম মডেল ইউনিয়নে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন কার্যক্রম দেখেন, মুরাদনগরে রবি ফসলের মাঠ ও সবজির বাজার, দ্বেবিদ্বারে মৌখামার ও সরিষা প্লট পরিদর্শন করেন। তিনি কৃষি বিভাগের সার্বিক কার্যক্রম নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, দাউদকান্দি, দ্বেবিদ্বার, মুরাদনগর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।


এসময় উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মনজিৎ কুমার মল্লিক,কুমিল্লার এডিডি (শস্য) শাহনাজ রহমান, দাউদকান্দির উপজেলা কৃষি অফিসার, সারোয়ার জামান, দ্বেবিদ্বার উপজেলা কৃষি অফিসার উত্তম কুমার কবিরাজ , মুরাদনগর উপজেলা কৃষি অফিসার মাইন উদ্দিন আহমেদ সোহাগ, এসএপিপিও দাউদকান্দি সৈয়দ জামান। অতিরিক্ত সচিব, মোঃ রুহুল আমিন তালুকদার “পরিবেশ বান্ধব কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্প” এর আওতায় আইপিএম পদ্ধতিতে সবজি উৎপাদনে কৃষকের মার্কেট লিংকেজ তৈরীর কথা বলেন।

 

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 + 15 =