নরসিংদী পৌরসভায় আমজাদ হোসেন বাচ্চু মেয়র নির্বাচিত

0
28
728×90 Banner

হলধর দাস : নজিরবিহীন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে রবিবার (২৮ ফেব্রæয়ারি’২০২১) শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নরসিংদী পৌরসভার স্থগিত ৪টি কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনী ফলাফলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ আমজাদ হোসেন বাচ্চু ২১,৭৬৮ ভোট পেয়ে বেসকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম মোবাইল প্রতীকের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম কাইয়ূম পেয়েছেন ১৯,৫৬৪ । অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ আসাদুল হক পেয়েছেন ১৫২৯ ভোট এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মোঃ হারুন অর রশীদ পেয়েছেন ৯,৬৯৪।
পুনর্বার ভোট গ্রহণকৃত স্থগিত কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৮নং ওয়ার্ডের ইউএমসি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে স্থাপিত ৩২নং ইউএমসি পুরাতন কলোনি এবং ব্রাহ্মনপাড়া অংশ নিয়ে গঠিত (পুরুষ ও মহিলা) কেন্দ্রে নৌকা পেয়েছে ৫৯৭ ভোট এবং মোবাইল পেয়েছে ৪৬৮ ভোট।
উত্তর নাগরিকান্দি ৩৩নং পুরুষ কেন্দ্রে নৌকা পেয়েছে ৮০৪ ভোট এবং মোবাইল পেয়েছে ৬৬৮ ভোট।
৩৪নং উত্তর নাগরিয়াকান্দি মহিলা কেন্দ্রে নৌকা পেয়েছে ৮৩৩ ভোট এবং মোবাইল পেয়েছে ৫২৪ ভোট।
এবং ৪নং ওয়ার্ডের ১৭নং বৌয়াপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীক পেয়েছে ৯৮৮ ভোট এবং মোবাইল প্রতীক পেয়েছে ৬৪০ ভোট।
স্থগিত এসকল কেন্দ্র সমূহে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ১৩৭। এর মধ্যে ভোট কাস্টিং এর হার ছিল ৫২ দশমিক ৮৮ভাগ। ভোট গ্রহণ শেষে রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক)শ্রী কমল কুমার ঘোষ এ ফলাফল ঘোষণা করেন। তিনি এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ করতে প্রতিটি কেন্দ্রে সার্বক্ষণিক একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহ অতিরিক্ত দুইজন ম্যাজিস্ট্রেট এবং পর্যাপ্ত পরিমানে র‌্যাব,বিজেপি,পুলিশ,আনসার মোতায়েন করা হয়েছিল। নির্বাচনকালে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
বেসরকারী ফলাফলে অন্যান্য নির্বাচিত প্রার্থীরা হলেন- ১ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৭৯৪৮ ভোট পেয়ে নিবাচিত হয়েছেন চশমা প্রতীকের প্রার্থী রুমানা ফেরদৌস, নিকটতম আনারস প্রতীকের জয়ন্তী রানী দাস পেয়েছেন ৪৩৪৭ ভোট। ২ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৫,১৯৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন টেলিফোন প্রতীকের প্রার্থী ইয়াছমিন সুলতানা। নিকটতম জবাফুল প্রতীকের প্রার্থী নাজমা আক্তার পেয়েছে ৫,১০২ভোট। ৩ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন জবাফুল প্রতীকের প্রার্থী তাহমিনা পারভীন(২২০৮ ভোট),নিকটতম আনারস প্রতীকের প্রার্থী হেলেনা বেগম পেয়েছেন ১৪৭২ ভোট।
১ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে টিউব লাইট প্রতীকের নূর মোহাম্মদ খন্দকার পারভেজ ২৬৯১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম টেবিল ল্যাম্প প্রতীকের কামাল মোল্লা পেয়েছেন ২৫৯০ ভোট।
২ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন ব্রীজ প্রতীকের মোঃ আজিজুর রহমান(২১১০ ভোট),নিকটতম পানির বোতল প্রতীকের এ.কে.এম ফজলুল হক(১১২৬ ভোট)
৩ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন উট পাখি প্রতীকের মোঃ দিদার হোসেন ফটু(৪৫৫৪ ভোট),নিকটতম ডালিম প্রতীকের মনিরুজ্জামান চৌধুরী (৮৬৬ ভোট) ।
৪ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে পানির বোতল প্রতীকের প্রার্থী অনিল চন্দ্র ঘোষ ২,৮৫০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম পাঞ্জাবী প্রতীকের প্রার্থী শ্যামল কুমার সাহা পেয়েছেন ৭৯৪ ভোট।
৫ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন উট পাখী প্রতীকের মোঃ সাইফুল ইসলাম ভূইয়া (৩৪৩৯ ভোট),নিকটতম পানির বোতল প্রতীকের মোঃ সাইফুদ্দিন জিয়া (১৫১৮ ভোট) ।
৬ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন টেবিল ল্যাম্প প্রতীকের মোঃ মোজাম্মেল হক সরকার (২০৬৬ ভোট),নিকটতম মোঃ আব্দুল খালেক সিদ্দিকী (১৪৪৭ ভোট) ।
৭ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন উট পাখী প্রতীকের মোঃ জহিরুল ইসলাম (২৩৫০ ভোট),নিকটতম টেবিল ল্যাম্প প্রতীকের মো: আলমাছ মিয়া (১৭২৫ ভোট) ।
৮ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন স্থগিত।
৯ নং ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হয়েছেন ব্রিজ প্রতীকের মাহাবুব আলম ভূঞা( ২৬৫৪ ভোট),নিকটতম পানির বোতল প্রতীকের এম. এম আলমগীর (২৩৬৮ভোট)।
উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে বিভিন্ন কঠোর নিবাপত্তা থাকা সত্বেও ব্যাপক সন্ত্রাসী কার্যকলাপের মধ্য দিয়ে নরসিংদী পৌরসভার নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নরসিংদী পৌরসভা নির্বাচনে ককটেল বিস্ফোরণ, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, ব্যালট পেপার ছিনতাই করে প্রিজাইডিং অফিসারকে টাকা দিয়ে কেন্দ্রের ছাদে নিয়ে সীলমারাসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে ৪টি কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত করে বাকী কেন্দ্রগুলোর নির্বাচন সম্পন্ন করা হয়েছিল। স্থগিত কেন্দ্রগুলোতে পুনর্নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দিয়েছিল সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষ।
স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সূত্রে আরো জানা যায়, ৬টি কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ এনে সেগুলোতে পুনর্বার নির্বাচন করার জন্য আদালতে রীট করা হয়েছে। ছয়টি কেন্দ্রে আবার নির্বাচন করার জন্য আদালত নির্বাচন কমিশনকে আদেশ দিবেন।
এব্যাপারে রিটার্নিং অফিসার শ্রী কমল কুমার ঘোষ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে তার জনৈক আইনজীবী ৬টি কেন্দ্রের পুনর্নির্বাচন করার দাবীতে রীট করেছেন । আইনজীবীর কথায়তো আর হবে না। কোর্ট যদি কোন নির্দেশনা দেয় , সেই অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন কাজ করবে । নতুনা নির্বাচন কমিশন আপিল করবে। আপিলের সর্বশেষ ফলাফল অনুসারে আমাদের নির্দেশনা দিবে সেই মোতাবেক আমরা কাজ করবো। আদেশের কোন কপি নির্বাচন কমিশনে এখন পর্যন্ত যায়নি। এছাড়া আমরা বেশী ভোট প্রাপ্তদের নির্বাচিত ঘোষণা করে যে ফলাফল দিয়েছি তা বহাল থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 + one =