পিলখানা ট্রাজেডি নিহতদের স্মরণে সভা সমাবেশ অনুষ্ঠিত……ন্যাপ ভাসানী

0
28
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান বঙ্গদীপ এম এ ভাসানী সভাপতির বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই সেনাবাহিনীর সাথে বিডিআর ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও জনগণের সাথে মুখমুখি করতে চায়, সংঘর্ষ বাধিয়ে দিতে চায়। আমাদের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী আমাদের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্তের প্রতিক। মহান মুক্তিযুদ্ধেও তাদের অনেক অবদান ছিল। আমাদের প্রাকৃতিক ও রাজনৈতিক দুর্যোগেও সেনাবাহিনী এগিয়ে এসেছে। বিভিন্ন সময় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা সমন্নত রাখতে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।
তিনি আরো বলেন, পিলখানায় তৎকালীন বিডিআর জোয়ান কর্তৃক ৫৭জন সেনা অফিসার নিহত হয়েছে আমরা বরাবরই তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। এটা ছিল সুদুর প্রসারী এক ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত। তৎকালীন নির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকারকে উৎক্ষাত করার জন্যই এধরণের জঘন্য হত্যাকন্ড সংঘঠিত হয়েছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেদিন তার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও নিপনতার মাঝে কোন সামরিক অভিযান হস্তক্ষেপ ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান দেন। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রশংসিত হয়েছে। আমরাও তার ভ‚য়সী অভিনন্দন জানাই। আর যাতে এই ধরণের ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত না হয় এই জন্য দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী, সরকারসহ সকল আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সচেষ্ট থাকার আহŸান জানাই।
অদ্য ২৫ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পিলখানা ট্রাজেডি তথা তৎকালিন বিডিআর হেডকোয়ার্টারে ৫৭জন সেনা অফিসার বিডিআর জোয়ান কর্তৃক নিহতদের স্মরণে- স্মরণসভা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আরো উপস্থিত ছিলেন, জননেতা এম এ জলিল, সভাপতি- জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ, মোঃ আনিসুর রহমান দেশ, সভাপতি- বাংলাদেশ কনজারভেটিব পার্টি, কাজী মাসুদ আহমেদ রিজভী, সভাপতি- শহীদ কাজী আরেফ ফাউন্ডেশন, অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক- বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক পার্টি, রফিকুল ইসলাম রতন, বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা, মোঃ আমানুল্লাহ সিকদার, সভাপতি- আওয়ার্মী পার্টি বাংলাদেশ।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − seven =