বাংলাদেশ ভারতের বন্ধুত্ব উপমহাদেশে রাজনৈতিক শান্তি স্থাপন করবেন……অধ্যাপক নিম চন্দ্র ভৌমিক

0
24
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর ( সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ) : বাংলাদেশের স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তীতে আগামী ২৬ মার্চ ২০২১ ভারতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় সফরের সফলতা কামনায় বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ ও বঙ্গবন্ধু শিশু কল্যাণ কেন্দ্র যৌথভাবে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে আজ ২১ মার্চ ২০২১ বিকাল ৪ ঘটিকায় বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তন, ঢাকা।
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন- বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল।সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- সাবেক রাষ্ট্রদূত, অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের সভাপতি লায়ন গনি মিয়া বাবুল, কলামিস্ট ও লেখক কবি নাহিদ রোখসানা, কাজী আরেফ ফাউন্ডেশনের সভাপতি কাজী মাসুদ আহমেদ, বরিশাল বিভাগ সমিতির যুগ্ম সম্পাদক আ স ম মোস্তফা কামাল, পিপলস ডেমোক্রেটি পার্টির সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, বাংলাদেশ আওয়ামী যুব লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য লোকমান হোসেন চৌধুরী, ঢাকা দক্ষিণ বাংলাদেশ জাসদের সহ সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী, য্গ্মু সম্পাদক হুমায়ুন কবির, বরিশাল বিভাগ সমিতির সদস্য শহীদুন্নবী ডাবলু, সাংবাদিক হোসেন আরা হীরা ও নারী নেত্রী এলিজা রহমান।
বক্তব্য রাখেন-বঙ্গবন্ধু শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের সভাপতি মুশফিকুর রহমান মিন্টু, গণতান্ত্রিক লীগের সহ সভাপতি ফাতেমা খাতুন, যুগ্ম সম্পাদক ফারহানা ইয়াসমীন মনি ও দপ্তর সম্পাদক কামাল হোসেন প্রমুখ।
অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ ভারতে বন্ধুত্ব চিরস্থায়ী। এই বন্ধুত্বের মাধ্যমে দুই দেশের উন্নয়ন ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা পাবে। ১৯৭১ সনে যখন বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধ আরম্ভ হয় সেই মূহুর্তে ভারত বাংলাদেশের পক্ষ অবলম্বন করে। এক কোটি শরনার্থীদের আশ্রয় দেয়। প্রায় দুই লক্ষ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দেয় এবং অস্ত্র দেয়। এরপর স্বাধীন বাংলাদেশের স্বীকৃতি প্রদান করার মাধ্যমে যৌথভাবে ভারতের সৈন্যরা মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে যুদ্ধ করেন এবং পাকিস্তানী সামরিক শাসকদের কে যুদ্ধের মাধ্যমে পরাজিত করে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করে। সেই ৭১ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ভারত। বাংলাদেশ ভারতে কাছে চির ঋণি। যে ঋণ শোধ হওয়ার নয়।
লায়ন গনি মিয়া বাবুল বলেন, ১৯৭০ সালে পাকিস্তানের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পরও পাকিস্তানের শামরিক শাসক নির্বাচন নিয়মনীতি না মেনে বাংলাদেশের নিরস্ত্র জনগণের উপর সশস্ত্র হামলা চালায় এই হামলার প্রতিবাদে ভারত বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ অবলম্বন করে এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে যুদ্ধ করে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করে। এই কারণে ভারত আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × 2 =