মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ১৪২ তম জন্মদিন পালিত

0
13
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশ উন্নয়ন পার্টির উদ্যোগে ঢাকায় মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ১৪২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভাসানী হকি ষ্টেডিয়ামের সম্মুখে এক আলোচনা সভা ১২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলাদেশ উন্নয়ন পার্টির সভাপতি সৈয়দ মোখলেসুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের সভাপতি ও বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টি (এম এল) এর সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম,বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল, বাংলাদেশ ন্যাপের সহ সহভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও বাংলাদেশ ন্যাপের ঢাকা মহানগরের সভাপতি কামাল ভূইয়া, বাংলাদেশ উন্নয়ন পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, এনডিপির মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈসা, জাতীয় স্বাধীনতার পার্টির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু, কৃষক শ্রমিক পার্টির সভাপতি মোঃ সিরাজুল হক,সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারন সম্পাদক ডাঃ শামছুল আলম, বরিশাল বিভাগ সমিতির সদস্য নকিব হক ও নারী নেত্রী এলিজা রহমান।
আলোচনা সভায় মওলানা ভাসানীর নামে শোষিত নিপীড়িত মানুষের অবিসাংবাদিত নেতা হিসেবে ইতিহাসে স্বর্ণাÿরে লেখা থাকবে উলেøখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমানে দেশের রাজনৈতিক বা¯Íবায়নে ভাসানীর মত শক্তিশালী ও দূরদর্শী নেতা একান্ত প্রয়োজন। দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি ও মূল্যস্ফীতির চাপে দেশের সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাসে উঠেছে। অন্যদিকে দুর্নীতি সামাজিক ব্যধিতে পরিণত হয়েছে। ব্যাংক লুট, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস ও বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ তছনছ, শ্রমিকের অত্যান্ত নিন্মতম মজুরী, বিদেশে অর্থ পাচার, কৃষকের ধানের ন্যায্য মূল্য না পাওয়া ও ডিজেল, সার ও সেচের সংকট আগামী বছর অত্যন্ত খারাপভাবে জাতির সামনে হাজির হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, মজলুম জননেতা ভাসানীর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের নানাবিদ উলেøখ করে বলেন, তিনি খেলাফত আন্দোলন, কংগ্রেস, নৈরাজ্য পার্টি করে বৃটিশ বিরোধী ভূমিকার জন্য কারাভোগ করেছেন। তিনি ৫৪’র য্ক্তুফ্রন্ট গঠনে অন্যতম প্রধান ভূমিকা, ৫২’র ভাষা আন্দোলন, ৬৯’র গণআন্দোলনে নেতৃত্বের ভূমিকা ও ৭১’র মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তারা বলেন ভাসানীর অসাম্প্রদায়িক ও বিপ্লবী ভূমিকার জন্য তাকে বিদ্রোহী মওলানা বলেও অবিহিত করা হত।

ভাসানী অনুসারী পরিষদে

আজ ১২ ডিসেম্বর ২০২২, সোমবার, মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ১৪২তম জন্মবার্ষিকী। দিবসটি উপলক্ষে ভাসানী অনুসারী পরিষদের উদ্যোগে সংগঠনের পুরানা পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। বক্তগণ মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর সংগ্রামী জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, মওলানা ভাসানী উপমহাদেশে রাজনীতির এক উজ্জল নক্ষত্র। তিনি আজীবন মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন। অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে তার বজ্রকণ্ঠ ছিল সদা সোচ্চার। এই অগ্নিপুরুষ ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে আমাদের মহান স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ১৯৫৭ সালে কাগমারী সম্মেলনে মওলানা ভাসানীই প্রথম বাংলাদেশকে স্বাধীনতার কথা বলেছিলেন। কিন্তু স্বাধীনতা পরবর্তী কোন সরকারই মওলানা ভাসানীকে যথাযথ মূল্যায়ন করেনি। বক্তাগণ পাঠ্য বইয়ে মওলানা ভাসানীকে যথাযথভাবে উপস্থাপন এবং মওলানা ভাসানীর মৃত্যুদিবস ১৭ নভেম্বর সরকারি ছুটি ঘোষণার দাবি জানান। সভায় বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান রিজু, সদস্য বাবুল বিশ্বাস, রফিকুল ইসলাম আসাদ, মোশারফ হোসেন, জাহাঙ্গীর কবির, সুলতান আলম মল্লিক,কাজী মোঃ নজরুল ও কোহিনুর আক্তার প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, মওলানা ভাসানী এমন একজন নেতা যিনি উপমহানদেশের রাজনীতিকে অভিজাত শ্রেণীর বৈঠকখানা থেকে বের করে সাধারণ মানুষের কাছে ছড়িয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here