মান্দায় বালু পরিবহণে ইজারাদারকে বাধা: ডিসির নিকট অভিযোগ

0
101
728×90 Banner

অসীম কুমার দাস (নওগাঁ প্র‌তি‌নি‌ধি) : নওগাঁর মান্দা উপজেলার আত্রাই নদীর উজান অংশে লীজকৃত মৌজা থেকে উত্তোলনকৃত বালু পরিবহণে ইজারাদারকে বাধা প্রদান করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে চরম আর্থিক ক্ষতির শঙ্কা করছেন ইজারাদার। ঘটনায় বালুমহাল ইজারাদার নওগাঁ জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন।
ইজারাদার রহমত আলী মোল্লা জানান, আত্রাই নদীর উজান অংশের বালুমহাল ১ কোটি ২০ লাখ টাকায় বাংলা ১৪২৭ সনে ইজারা গ্রহণ করেন। পহেলা বৈশাখ থেকে বালুমহালটি বুঝে দেওয়ার নিয়ম থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে দুইমাস পর আষাঢ় মাসে তা বুঝে পান। কিন্তু বর্ষা মৌসুমের কারণে নদী থেকে বালু উত্তোলন করা সম্ভব হয়নি।
তিনি আরও জানান, বর্ষা শেষে আশ্বিন মাসে লীজকৃত লক্ষ্মীরামপুর মৌজায় রফিকুল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর আলমের নিকট থেকে ব্যক্তি মালিকানার জমি লীজ নিয়ে সেখানে নদী থেকে বালু উত্তোলন শুরু করেন। এরপর উত্তোলনকৃত বালু ট্রাক্টরের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি শুরু করা হলে স্থানীয় বাচ্চু, বাবুল হোসেনসহ কতিপয় লোকজন পরিবহণ কাজে বাধা প্রদান করছে। তারা ট্রাক্টর উঠানামার রাস্তায় লীজকৃত জমিতে কলাগাছ রোপণ ও বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখায় পরিবহন কাজ বন্ধ হয়ে গেছে।
ইজারাদার রহমত মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, ইতোমধ্যে ইজারা সময়ের সাত মাস অতিবাহিত হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে এখন পর্যন্ত বালু উত্তোলন ও বিক্রি করতে পারছি না। এতে চরম আর্থিক ক্ষতির শঙ্কায় আমার দিন কাটছে। জটিলতা নিরসনে গত রোববার (১৫ নভেম্বর) নওগাঁ জেলা প্রশাসক, মান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবর অভিযোগ দাখিল করেছি।
মান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল হালিম অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য এসিল্যান্ডকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 − four =