মামুনুল হক ও তার স্ত্রীর জবানবন্দী

0
59
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: রাজধানীর অদূরে সোনারগাঁয়ের একটি রিসোর্টে শনিবার বিকেলে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে ঘেরাও করে রাখা হয়। পুলিশ বলছে, মামুনুলের একজন নারীসহ এখানে অবস্থানের খবর পেয়ে স্থানীয় কিছু লোকজন, ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতা-কর্মীরা তাঁর কক্ষটি ঘেরাও করেন। আর মামুনুল হক বলছেন, দ্বিতীয় স্ত্রীসহ অবকাশযাপনে গেলে কিছু লোক তাঁকে নাজেহাল করে।
সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তবিদুর রহমান শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, এখানে মামুনুল হক একজন নারীকে নিয়ে উঠেছেন, এই খবর পেয়ে এলাকার লোকজন ও ছাত্রলীগ-যুবলীগের কিছু নেতা-কর্মী তাঁর কক্ষটি ঘিরে রাখেন। খবর পেয়ে পুলিশও আসে। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এখানে রয়েছেন। পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও এসেছেন।
এদিকে মামুনুলকে ঘেরাওয়ের খবরে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা ‘রয়েল রিসোর্ট’ নামে ওই অবকাশ যাপনকেন্দ্রটিতে যান। সেখানে মামুনুল সংবাদকর্মীদের বলেন, দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে অবকাশ যাপনে তিনি ওই রিসোর্টে যান। সেখানে তাঁকে হেনস্তা করা হয়েছে।
মামুনুল বলেন, ‘মাস্তান প্রকৃতির লোকেরা এসে আমাকে আমার ওয়াইফসহ নাজেহাল করেছে। আমাকে আক্রমণ করেছে।’
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘শনিবার দুপুরে স্ত্রীকে নিয়ে সোনারগাঁয়ে যাই। জাদুঘর ঘুরে দেখে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য এখানে (রিসোর্টে) আসি।’
নারায়ণগঞ্জে সোনারগাঁওয়ের একটি রিসোর্টে নারীসহ হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হককে আটকে রেখেছেন স্থানীয় জনতা। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।
নারায়ণগঞ্জের পুলিশ ‍সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘সোনারগাঁওয়ের রয়্যাল রিসোর্টে একটি কক্ষে আমরা মামুনুল হককে আটক রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করছি। বিস্তারিত পরে জানাব।’
মামুনুল হক, হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব
মামুনুলকে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মামুনুল দাবি করেছেন, ওই নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী, দুই বছর আগে বিয়ে করেছেন।
তবে ক্রমাগত প্রশ্নের মুখে মামুনুল প্রায়ই নীরব থাকেন।
প্রশ্ন: আপনার কী হয়?
মামুনুল: আমার ওয়াইফ। আমি তাকে বিয়ে করেছি। শরিয়তসম্মতভাবে বিয়ে করেছি।
প্রশ্ন: কবে বিয়ে করছেন? বিয়ে করলে রয়্যাল রিসোর্টে কেন আসবেন সময় কাটাতে?
মামুনুল: বিয়ে করেছি, প্রমাণ আছে সাক্ষী আছে।
প্রশ্ন: কয় বছর আগে বিয়ে করেছেন?
মামুনুল: দুই বছর আগে।
প্রশ্ন: দুই বছর আগে বিয়ে করলে সময় কাটাতে রয়্যাল রিসোর্টে কেন আসছেন?
মামুনুল: আমি বেড়াইতে আসছি।
প্রশ্ন: আপনার ওয়াইফের নাম কী?
মামুনুল: আমিনা তাইয়্যেবা।
প্রশ্ন: উনার বাড়ি কই?
মামুনুল: কিছুই বলব না।
প্রশ্ন: আপনি আকাম করবেন, আর আমাদের কিছু বলবেন না, সেটা তো হবে না।
মামুনুল: আল্লাহর কসম আমি আকাম করি নাই।
প্রশ্ন: আপনি আসছেন কখন এখানে?
মামুনুল: আমি আসছি দুপুর দুইটায়।
প্রশ্ন: এখানে কোথায় আসছেন?
মামুনুল: আমি সোনারগাঁওয়ে বেড়াতে আসছিলাম।
প্রশ্ন: আপনি যে এখানে আসছিলেন সেটা ওলামায়ে একরাম কেউ জানে?
মামুনুল: না, আমি কারও সঙ্গে দেখা করে আসি নাই। আমি যেখানেই যাই মানুষজন ভিড় করে, সেজন্য একটু আলাদাভাবে আসছি।
প্রশ্ন: আপনি দেশের এই পরিস্থিতির মধ্যে এখানে কেন?
মামুনুল: কথা নেই।
প্রশ্ন: আপনারা দেশটারে জ্বালায়া লাইসেন, হুজুর হয়ে কেমনে সহিংসতা করেন?
মামুনুল: সে আমার বিবাহিতা স্ত্রী, সে আমার বিবাহিতা স্ত্রী… আমি আপনাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেব।
প্রশ্ন: আমাদের বিরুদ্ধে নেবেন?
মামুনুল: এই যে দুর্ব্যবহার করতেছেন আমার সঙ্গে।
প্রশ্ন: আপনার ওয়াইফ যদি নিয়া আসেন আপনি বুক ফুলায়া কথা বলবেন। আপনি কেন পালায়া যাইতে চাইছিলেন?
মামুনুল: (চুপ থেকে) আপনারা সবাই দুর্ব্যবহার করতেছেন।
প্রশ্ন: আপনি কেন পালায়া যাইতে চাইছেন?
মামুনুল: চুপ
প্রশ্ন: আপনি উত্তর দেন
মামুনুল: চুপ
প্রশ্ন: যে মেয়েটাকে আপনার সঙ্গে দেখলাম সে তো আপনার বয়সের সঙ্গে ম্যাচ খায় না।
মামুনুল: (বিয়ের) প্রমাণ আছে, প্রমাণ আছে বললাম তো।
প্রশ্ন: আপনার কাছে কী প্রমাণ আছে?
নারীসহ রিসোর্টে গিয়ে জনগণের তোপের মুখে হেফাজত নেতা মামুনুল
মামুনুল: আমি বললাম তো শরিয়তসম্মতভাবে বিয়ে করেছি। আমার বিবাহিতা স্ত্রী, বললাম তো। আমার বিবাহিতা স্ত্রী সে, আর কোনো কথা আছে। আমি কসম করে বলতাছি, আমি আল্লাহর নামে শপথ করছি।
প্রশ্ন: আপনি দেশের মধ্যে অরাজকতা সৃষ্টি করছেন
মামুনুল: অরাজকতার কথা কন কেন? অরাজকতার সঙ্গে এইটার কী সম্পর্ক।

 

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 − 8 =