গাছায় সামাজিক অবক্ষক্ষ রোধে সিসি ক্যমেরা মনিটরিং কার্যক্রমের উদ্বোধন

0
46
728×90 Banner

অলিদুর রহমান অলি: গাজীপুরের মহানগরীর গাছা থানা এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, কিশোর গ্যাং ও সামাজিক অবক্ষয় রোধে নগরী ৩৫নং ওয়ার্ডে সিসি টিভি মনিটরিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেলে সাবেক গাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাছা থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মশিউর রহমান মশির সভাপতিত্বে এবং কামারজুরি ইউসুফ আলী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য হাজী মোঃ আলমগীর হোসেন পরিচালনায় সিসি ক্যামেরা মনিটরিং কার্যক্রম উদ্বোধন ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অপরাধ দক্ষিণ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইলতুৎ মিশ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অপরাধ দক্ষিণ বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার হাসিবুল আলম, সহকারী পুলিশ কমিশনার আহসানুল হক, গাছা থানার অফিসার ইনচার্জ ইসমাইল হোসেন, গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মহিউদ্দিন আহাম্মেদ মহি, গাছা থানা যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী ও ৩৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী রাশেদুজ্জামান জুয়েল মন্ডল, গাজীপুর মহানগর শ্রমিকলীগের যুগ্ম আহবায়ক মুজিবুর রহমান, আহামেদ রাজ, আওয়ামীলীগ নেতা রুবেল খান মন্টু প্রধান, গাছা থানা কৃষকলীগ লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাশেদ খোরশেদী, গাছা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃ বিল্লাল হোসেন, রাসেল আহম্মেদ রাজ, যুবলীগ নেতা ফরহাদুল ইসলাম মিলন, হুমায়ুন কবির রাজ, গাজীপুর মহানগর স্বেচছাসেবক লীগের সহ সভাপতি জাহিদুল কবির আনোয়ার, এসএম মামুন, শ্রমিক নেতা মাসুদ রানা, চান মিয়া শেখ, সোহেল আহম্মেদ, গাজী খোরশেদ আলম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে উপ-পুলিশ কমিশনার ইলতুৎমিশ বলেন, মাদক, সন্ত্রাস চাঁদাবাজি ও বাল্যবিবাহের মতো অপরাধ গুলো নিয়ে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন সিসি ক্যামেরা উদ্বোধনের ফলে সিসি ক্যামেরার সাহায্যে পুলিশ সহজেই অপরাধীকে শনাক্ত করতে পারবে এবং তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে সক্ষম হবে। সুতরাং অপরাধ প্রবণতা রোধ কল্পে সিসি ক্যামেরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
রাশেদুজ্জামান জুয়েল মন্ডল বলেন, সিসি ক্যামেরা প্রতিস্থাপনের কারণে এলাকায় যেকোনো ধরনের অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে। অপরাধীদের যে কোনো কর্মকাণ্ড ক্যামেরাবন্দী হওয়ার কারণে তারা অতি সহজেই অপরাধ করার সাহস পাবে না।
বক্তারা মনে করেন নগরীর প্রতিটি এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসতে পারলে নগরীতে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে এবং নগরবাসী স্বস্তিতে বসবাস করতে পারবে।
অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণে মশিউর রহমান মশি বলেন, অপরাধ প্রবণতা রোধ কল্পে পুলিশ-জনতা একসাথে কাজ করতে হবে। সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে পুলিশ সহজেই অপরাধীকে শনাক্ত করতে পারবে এবং তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে বিচারের সম্মুখীন করতে পারবে।
তিনি বলেন, আর এতে করে আমরা একটি মাদক সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ মুক্ত সুন্দর সমাজ দেখতে পাবো।তাই আসুন যে কোন অপরাধের ব্যাপারে পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করি এবং মাদক সন্ত্রাস চাঁদাবাজ মুক্ত সমাজ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করি।
অনুষ্ঠানে পুলিশের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয় নগরীর প্রতিটি এলাকাকে পর্যায়ক্রমে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসার জন্য কাজ করা হচ্ছে।
আলোচনা সভা শেষে সামাজিক অবক্ষয় রোধে সিসি ক্যামেরা মনিটরিং কার্যক্রম উদ্বোধন ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here