মুক্তিযোদ্ধাদের আরো অধিক ঐক্যবদ্ধ হতে হবে………..শাহজাহান খাঁন

0
48
728×90 Banner

লায়ন অ্যাড. এম এ মজিদ, দিনাজপুর থেকে: আজ ১২ অক্টোবর বুধবার সকাল ৯ টায় দিনাজপুর সার্কিট হাউজে দিনাজপুর জেলার সকল উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্হায়ী পরিষদের সভাপতি এবং সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান খাঁন, এম পি’র এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
দিনাজপুর মুক্তিযোদ্ধা জেলা কমান্ডের সদ্য সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এটিএম সুলতান আহমদ, দিনাজপুর জেলা কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার সৈয়দ মোকাদ্দেস হোসেন বাবলু, সদ্য সাবেক জেলা সাংগঠনিক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী, দিনাজপুর সদর উপজেলার সদ্য সাবেক উপজেলা কমান্ডার লোকমান হাকিম, বিরল উপজেলার সদ্য সবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম অরু, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রিন্সিপাল সাইফুদ্দিন আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরহাদ আহমেদ। এছাড়াও দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলা হতে আগত বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ তাদের বিভিন্ন দাবিদবা তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করেন।

সভার শুরুতেই মতবিনিময় সভার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ৮ দফা দাবি সম্বিলিত একটি স্মারকলিপি মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান খাঁনসহ উপস্থিত সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে প্রদান করেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান খান প্রধান অতিথি হিসেবে তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযোদ্ধারা নিজের জীবনকে শতভাগ বাজি রেখে দূর্ধর্ষ পাকিস্তানি বাহিনির উপর ঝাপিয়ে পড়ে দেশটিকে স্বাধীন করেছিলেন বলেই আমরা স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশের নাগরিক এবং বাঙ্গালীরাই দেশের সকল পদে অধিষ্ঠিত। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধাদের অনেক সুবিধা দিয়েছেন এবং আরো দিবেন। তিনি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ যেসকল সুবিধাদি পাচ্ছেন তার একটি পুস্তিকা ছাপানো হয়েছে। পুস্তিকাটি সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সরবরাহ করা হবে, যাতে করে তারা তাদের প্রাপ্য বৈধ রাষ্ট্রীয় সুবিধাগুলো সহজভাবে গ্রহন করতে পারেন। প্রধান অতিথি আরো বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের আরো অধিক সুসংগঠিত এবং ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবং আওয়ামী লীগকে আসন্ন জাতীয় সংসদের নির্বাচনে ভোটের মাধ্যমে আবারো ক্ষমতায় আনতে হব।
দিনাজপুর ৩ আসনের সাংসদ এবং জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, আমার পিতা এড. এম আব্দুর রহিম বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা এবং সংগঠক ছিলেন। সেকারণে প্রতিটি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমার কাছে পিতৃতুল্য। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি শিশু ছিলেন বলে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের সুযোগ পাননি। সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য তার দুয়ার সব সময়ই খোলা রয়েছে। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সেবা ও সাহায্য করতে পারলে নিজেকে ধন্য ও কৃতজ্ঞ মনে করবেন বলে জানান।
সভাপতির ভাষণে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান উপস্থিত সকল মুক্তিযোদ্ধাকে দূরদূরান্ত থেকে কষ্ট করে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ, অভিনন্দন এবং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি উপস্থিত সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তার পক্ষ থেকে সকালের নাস্তার আমন্ত্রণ জানিয়ে মতবিনিময় সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here