জামালপুর আ.লীগ থেকে মুরাদ কে অব্যাহতি

0
69
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।
মঙ্গলবার (০৭ ডিসেম্বর) জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভা শেষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সুরুজ্জামান এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট বাকি বিল্লাহ জানিয়েছেন, ডা. মুরাদ সাহেবকে আমরা আওয়ামী লীগের গণতন্ত্রের ৪৭ এর ৯ অনুযায়ী অব্যাহতি দিয়ে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের কাছে পাঠিয়েছি।
এদিকে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে মন্ত্রিসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদত্যাগের নির্দেশ দেওয়ার খবরে তার নির্বাচনী এলাকা জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুর থেকে দফায় দফায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল-আমিন হোসাইন শিবলুর নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল আরামনগর বাজার ট্রাক মালিক সমিতির মোড় থেকে শুরু করে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা করা হয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা মুরাদ হাসানের কুশপুতুল দাহ করে।
একই সময় পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুতের নেতৃত্বে শিমলা বাজার থেকে আনন্দ মিছিল বের হয়। মিছিলটি আরডিএম স্কুল রোড ও বাস টার্মিনাল সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বঙ্গবন্ধু চত্বরে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা করা হয়।
এর আগে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে তারাকান্দি শহীদ মিনার চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা আনন্দ মিছিল বের করেন।
এদিকে ঘোষণাটি এলাকায় প্রচার হওয়ার পরপরই মুরাদ হাসানের কর্মী-সমর্থকরা এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। উপজেলার বিভিন্নস্থানে লোকজন পটকা ফুটিয়ে উল্লাস প্রকাশ করে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও রীতিমতো নানা প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও আনন্দ প্রকাশ করছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।
সম্প্রতি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে মন্তব্যের জন্য তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের পদত্যাগের দাবি তোলে বিএনপি। এ নিয়ে আলোচনার মধ্যেই চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ও চিত্রনায়ক ইমনের সঙ্গে ডা. মুরাদের একটি অডিও ক্লিপ ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেশের একজন অভিনেত্রীর সঙ্গে মুরাদ হাসানকে অশালীন ভাষায় কথা বলতে এবং তাকে হুমকি দিতে শোনা যায়।
বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। একপর্যায়ে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন।


মুরাদের নির্বাচনী এলাকায় আনন্দ মিছিল, কুশপুতুল দাহ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিসভা থেকে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দেওয়ায় তার নির্বাচনী এলাকা জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুর থেক দফায় দফায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল-আমিন হোসাইন শিবলুর নেতৃত্বে একটি আনন্দ মিছিল আরামনগর বাজার ট্রাক মালিক সমিতির মোড় থেকে শুরু করে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
পরে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা করা হয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা মুরাদ হাসানের কুশপুতল দাহ করেন।
একই সময় পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্যুতের নেতৃত্বে শিমলা বাজার থেকে আনন্দ মিছিল বের হয়। মিছিলটি আরডিএম স্কুল রোড ও বাস টার্মিনাল সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বঙ্গবন্ধু চত্বরে সংক্ষিপ্ত সভা হয়।
এর আগে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে তারাকান্দি শহীদ মিনার চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা আনন্দ মিছিল বের করেন।
এদিকে পদত্যাগের ঘোষণা এলাকায় প্রচার হওয়ার পরপরই ডা. মুরাদ হাসানের কর্মী-সমর্থকরা এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। উপজেলার বিভিন্নস্থানে লোকজন পটকা ফুটিয়ে উল্লাস প্রকাশ করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নানা প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও আনন্দ প্রকাশ করছেন ফেসবুকে।
উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিন হোসাইন শিবলু এক প্রতিক্রিয়ায় জানান, মুরাদ হাসান মন্ত্রণালয়ের দাপটে এলাকায় দলীয় নেতাকর্মীদের নির্যাতন করেছেন। তার নানা অপকর্মে আমরা লজ্জিত ছিলাম। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিলের আয়োজন করেছি।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ ছানোয়ার হোসেন বাদশা বলেন, এই তথ্যপ্রযুক্তির যুগে একজন তথ্য প্রতিমন্ত্রী যেভাবে অশ্রাব্য ভাষায় কথা বলেন, তা দলের জন্য সত্যিই লজ্জাজনক। প্রধানমন্ত্রী যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাকে আমরা স্বাগত জানাই।
আনন্দ মিছিল মানুষের দীর্ঘদিনের অভিব্যক্তির বহিঃপ্রকাশ বলেও তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here