নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তুষ্ট বিদেশি পর্যবেক্ষকরা

0
222
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গতকাল শেষ হল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন।এই নির্বাচনকে ঘিরে অনেকের ছিল বিভিন্ন সংশয়। দেশ যখন আওয়ামী লীগ সরকারের আন্তরিক বিচক্ষণতায় ও দক্ষ পরিচালনায় এগিয়ে নিয়ে চলছিল একটি দরিদ্র দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নত করেছিল ঠিক তখনি একটি মহল দেশকে পিছিয়ে নিতে একাত্তরের ন্যায় আবারো ষড়যন্ত্র করতে থাকে। সরকারের উন্নায়নে তারা বিচলিত হয়ে পরে। কেননা সরকারের এই উন্নয়ন দেখে জনগণ এই সরকার ছাড়া অন্য কাউকে সরকার বানাবে না তা তারা হারে হারে বুঝতে পেরেছিল।
সরকারের এই উন্নয়ন কে ভয় পেয়ে তারা নির্বাচন নিয়ে চালাতে থাকে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র। তারা জনগণের ভোটে না অন্য কোন উপায়ে ক্ষমতায় আসতে চেয়েছিল। তাই নির্বাচন কে নিয়ে জনমনে বিরূপ মনোভাব তৈরি করতে চালাতে থাকে গভীর ষড়যন্ত্র।
তাদের এই ষড়যন্ত্র জনমনে অনেকটা প্রভাব ফেলেছিল। তাই দেশের জনগণের পাশাপাশি বিদেশীদেরও নজর ছিল নির্বাচনের দিক। অবশেষে সকল ষড়যন্ত্রের অবসান হলো গতকালের অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার মাধ্যমে।
গতকালের নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ হয়েছে তা দেশের বিভিন্ন মিডিয়া দেখিয়েছে এবং নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে তা বলেছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৫ হাজার ৯২০ জন দেশি পর্যবেক্ষক ছিল। জাতীয় নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা। ঢাকাস্থ বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র ঘুরে ও পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ সন্তুষ্টির কথা জানান বিদেশি পর্যবেক্ষক কানাডিয়ান নাগরিক তানিয়া ফস্টার।
তিনি বলেছেন, শান্তিপূর্ণভাবে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। ভোটকেন্দ্রে সব দলের প্রতিনিধিদের দেখা গেছে। রাজধানীর ভিকারুননিসা স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এমন কথা বলেন। এসময় সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের আওতায় তানিয়া ফস্টারসহ বেশ কয়েকজন বিদেশি নাগরিক ওই কেন্দ্র পরিদর্শনে আসেন।
বাংলাদেশের এ নির্বাচনের সাক্ষী হতে পেরে গর্ববোধ করে তানিয়া ফস্টার বলেন, এ পর্যন্ত আমি পাঁচটি ভোটকেন্দ্র ঘুরেছি। প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোটাররা অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে ভোট প্রয়োগ করতে দেখেছি। এটা আমাকে সত্যিকারের অনুপ্রাণিত করেছে।
পর্যবেক্ষক দলের প্রতিনিধি ভারতীয় নাগরিক ড. গৌতম ঘোষ সাংবাদিকদের বলেন, খুবই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সবাই ভোট দিয়েছে। এখানকার নির্বাচন আর ভারতের নির্বাচনের মধ্যে কোনো পার্থক্য দেখিনি। সবাই দীর্ঘ লাইন ধরে ভোটের জন্য অপেক্ষা করেছেন। দেশ আলাদা হলেও ভোটে কোনো পার্থক্য দেখিনি।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here