উত্তরায় চাঁদা না দেয়ায় দোকান ভাংচুর নগদ টাকাসহ মাছ লুটের অভিযাোগ

0
44
728×90 Banner

এস, এম, মনির হোসেন জীবন – রাজধানীর উত্তরায় চাঁদাবাজদের চাহিদামত মোটা অন্কের টাকা চাঁদা না দেয়ায় এক মাছ ব্যবসায়ী দোকানে হামলা ভাংচুর চালিয়ে স্হানীয় নামধারী সন্তাসী ও বহিরাগতরা। এসময় বহিরাগত সন্তাসীদের হামলায় দোকানের দুই কর্মচারী ও আহত হয়েছেন।
যাবার বেলায় সন্তাসীরা নগদ ২৫/৩০ হাজার টাকাসহ ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকার মাছ লুটপাট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযাোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী এই মাছ ব্যবসায়ী নাম মো, জাহাঙ্গীর আলম। সে উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী ম?সজীবী লীগের সাধারন সম্পাদক বলে জানা গেছে।
বৃহস্পতিবার সন্ধায় উত্তরা পূর্ব থানার আজমপুর বিডিআর কাচাবাজারে এ হামলা,ভাংচুর ও লুটপাটের এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, রাজধানীর তুরাগ থানার আহালিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল ছোবাহান হাওলাদারের পুএ মো, জাহাঙ্গীর আলম। বর্তমানে সে আহালিয়া বাসা নং ৪১/৩ রোড নং ২ তুরাগ ঢাকা বসবাস করে আসছেন। উত্তরা পূর্ব থানার বিডিআর কাচা বাজার মার্কেটে মান্নানের সাথে পাটনারে মাছের আড়তে দোকান দিয়ে দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে ব্যবসা করেন জাহাঙ্গীর আলম।
বৃহস্পতিবার সন্ধায় মো, খালেক সরকার, রাশেদ মিয়া, ডাক্তার সাহেব, মো, রিপন, ইলিয়াস, মুখলেজ,সাত্তার, ও কসাই আক্তার নেতৃত্বে ৫০/৬০ জন বহিরাগত লোকজন নিয়ে দেশীয় অস্ত্র
ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে বেআইনি ভাবে বিডিআর কাচা বাজার মার্কেটে প্রবেশ করে। এরপর তারা কৌশলে মার্কেটের বিদু্তের লাইন কেটে বন্ধ করে দিয়ে আমার নিজের মাছের দোকানে কমান্ডো স্টাইলে গিয়ে হামলা,ভাংচুরসহ, সব কিছু তছনছন করে। এসময় আমার দোকানের দুই কর্মচারী এমদাদ (৫৫) ও আবর আলী (৬০)কে ভয় দেখিয়ে ক্যাশ থেকে নগদ ২৫/৩০ হাজার টাকা ও প্রায় ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের ইলিশ মাছ সহ অন্যান্য দেশীয় মাছ লুটপাট করে নিয়ে গেছে। যাবার বেলায় সন্তাসীরা আমার দুই কর্মচারীকে দোকান থেকে বের করে দিয়ে দোকানটি জোরপূর্বক ভাবে জবরদখল করে নিয়েছে। তারা আমাকে জানে মেরে ফেলবে বলে হুমকী দিয়ে বীরদর্পে দলবল নিয়ে এলাকা ত্যাগ করে। এঘটনার পর থেকে আমি ও আমার দোকানের কর্মচারীরা সন্তাসী ও চাঁদাবাজদের ভয়ে চরম নিরাপওাহীনতায় মানবেতর জীবন যাপন করছি। যে কোন সময় তারা আমার বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। এ ঘটনার পর গতরাতে আমি বিষয়টি উত্তরা বিভাগের এডিসি ও ওসিসহ দলীয় নেতাকর্মীদের অবগত করেছি। এছাড়া এ ব্যাপারে আমি উত্তরা পূর্ব থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছি বলে জানান ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো, জাহাঙ্গীর আলম।
জিডি ও আদালতে মামলা সূএে জানা যায় ,মো, জাহাঙ্গীর আলম রাজধানীর উত্তরা পূর্ব থানার বিডিআর কাচা বাজার মার্কেটের মান্নানের সাথে পাটনারে মাছের আড়তে দোকান দিয়ে দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে ব্যবসা করে আসছে। ব্যবসা পরিচালনা কাকে আমার পূর্ব পরিচিত টংগী পশ্চিম থানার দত্তপাড়া এলাকার বাসিন্দা বাসির উদ্দিন সরকারের পুএ আব্দুল খালেক সরকার দীর্ঘ এক বছর ধরে আমার মাছের দোকানটি ছেড়ে দেয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদান করে আসছে। এর জের ধরে খালেক সরকার সহ ৮/১০ জন লোক এসে আমার কাছ থেকে জোর পূর্বক ভাবে সাদা কাগজে সাক্ষর করে নেয়। পরবর্তীতে গত ১লা আগস্ট-২০২১ তারিখে তারা পূনরায় দলবল নিয়ে আমার দোকানের সামনে এসে আমাকে অকথ্য ভাষায় বিভিন্ন ধরনের গালমন্দ করে। এসময় আমি তাদের কথার প্রতিবাদ করলে তারা আমার দোকান ঘরটি তাদেরকে ছেড়ে না দিলে আমার তারা বড় ধরনের ক্ষতি কিংবা জীবনে শেষ করে দিবে বলে হুমকী প্রদর্শন করে। উত্তরা পূর্ব থানা জিডি নং -৫৩৫। তারিখ-১২/০৮/২০২১। এসআাই রাফিজ উদ্দিন জিডিটি তদন্তকারী কর্মকর্তা বলে জানা গেছে।
এছাড়া ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো, জাহাঙ্গীর আলম বিঙ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত,ঢাকা। পিটিশন মামলা নং-৫০/২০২১। ধারাঃ ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ১০৭/১১৭ (সি) দায়ের করেন। ওই মামলায় মো, খালেক সরকার, রাশেদ মিয়া, ডাক্তার সাহেব ও মো, রিপন (মুদি দেকানদার)সহ ৪জনকে আসামী করা হয়েছে।
অপর দিকে, ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো, জাহাঙ্গীর আলম বিঙ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত,ঢাকা। সিআর মামলা নং- ২০২১ ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ১০৭/১১৭ (সি) ধারায় আরে এজটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় প্রধান আসামী করা হয়েছে মো, খালেক সরকার (৪০)। পঙৃচগড় জেলার ধাক্কা মারা থানার সরকার পাড়া গ্রামের বাসির উদ্দিন সরকারের ছেলে।
এছাড়া খালেক সরকার উত্তরা আজমপুর ৬ নং সেক্টর নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রেতা/ বিক্রেতা, বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিডেট এর ষুগ্ন সাধারন সম্পাদক বলে জানা গেছে। এছাড়া ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো, জাহাঙ্গীর আলম বিঙ সি,এম,এম সাহেবের আদালত,ঢাকা। সি,আর মামলা নং ১১২৩/২০২১। ধারাঃ ১৪৩/ ১৪৮/ ১৪৯/ ৩২৩/ ৩৭৯/ ৩৮৫/ ৪২০/ ৪০৬/ ৪৬৭/ ৪৬৮/ ৪৭১/১০৯ দণ্ডবিধি। ওই মামলায়ও উপরে উল্লেখিত ব্যক্তিদেরকে আসামী করা হয়। বর্তমানে মামলাটি পুলিশ ব্রুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করছেন।
এবিষয়ে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো, জাহাঙ্গীর আলম জীবনে বেচে থাকার তাগিদে নিজের নিরাপওা চেয়ে আজ শুক্রবার উত্তরা পূর্ব থানায় একটি লিখিত আবেদন করেছেন। এছাড়া সেলক্ষ্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি, র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ডিজি,,ডিএমপির কমিশনার ও উত্তরা বিভাগের ডিসি জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × four =