গাজীপুরবাসী ক্লিন ইমেজের জাহিদ আহসান রাসেলকে আবারও এমপি হিসেবে দেখতে চায়

0
100
728×90 Banner

নাসির উদ্দীন বুলবুল: সাত জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। চারদিকে শুরু হয়েছে নির্বাচনী আমেজ। গাজীপুর-২ আসনের সাধারণ মানুষের প্রিয় , গরীব দুখী মানুষের আশ্রয়স্থল, শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টারের সুযোগ্য সন্তান আলহাজ¦ মোঃ জাহিদ আহসান রাসেলকে এবারও ৫ম বারের মতো এমপি হিসেবে দেখতে চায় সাধারণ জনগণ, আ.লীগ তথা তৃণমূল নেতাকর্মীরা। ক্লিন ইমেজের জাহিদ আহসান রাসেলকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করার লক্ষ্য নিয়ে ইতিমধ্যে এলাকার জনগণ প্রতিদিন তার পক্ষ হয়ে ভোটারদের কাছে গিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট চাওয়া থেকে শুরু করে উঠান বৈঠক করছেন তারা।
জাহিদ আহসান রাসেল শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ছেলে। আহসান উল্লাহ মাস্টার আওয়ামী লীগের একজন কঠিন সময়ের পরীক্ষিত নেতা ছিলেন। বিএনপি জামায়াত-জোট সরকারের হাতে নির্মমভাবে তিনি নিহত হয়েছিলেন। আহসান উল্লাহ মাস্টারের এলাকা গাজীপুরে বিপুল জনপ্রিয়তা। তিনি ছিলেন গাজীপুর আওয়ামী লীগের অন্যতম খুঁটি। আর তার মৃত্যুর পর যে শূন্যস্থান তৈরি হয় সেখান থেকেই গাজীপুরের রাজনীতিতে নানা রকম টানাপোড়েন এবং বিভক্তির সৃষ্টি হয় বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন। আহসান উল্লাহ মাস্টারের মৃত্যুর পর ২০০৯, ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনে তার ছেলে জাহিদ আহসান রাসেল নির্বাচন করেন এবং বিজয়ী হন। এবার রাসেলকে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
বাবা প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা আহসান উল্লাহ মাস্টারের মৃত্যুর পর গাজীপুর-২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তার সুযোগ্য ছেলে জাহিদ আহসান রাসেল। এরপর যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন নিষ্ঠার সাথে। গাজীপুরের এই তরুণ সংসদ সদস্য। পুরষ্কার স্বরূপ মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছেন তিনি। যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে সততা ও নিষ্ঠার সাথে তিনি তার দায়িত্ব পালন করেছেন।
অত্যন্ত ক্লিন ইমেজের এমপি হিসাবে রাসেল সহজেই নজর কেড়েছেন জনগনের এবং দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। সরেজমিন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর ২ আসনে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিমন্ত্রী রাসেলকে আ.লীগ থেকে নৌকা মার্কায় মনোনয়ন দেয়ায় এই আসনের সাধারণ মানুষের মাঝে আবারও ফিরে এসেছে এক ধরণের স্বস্তির নিঃশ্বাস। জনগণ নিজ উদ্যোগে এলাকায় গিয়ে গিয়ে রাসেলের জন্য ভোট চাচ্ছে। শুধু তাই নয় গাজীপুরের ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, নারী নেত্রীরাও রাসেলের জন্য এক হয়ে ভোটারদের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন।
গাজীপুর তথা টঙ্গী বাসীর প্রাণপ্রিয় নেতা গাজীপুরের কৃতি সন্তান প্রতিমন্ত্রী রাসেলের জনপ্রিয়তা নিয়ে কথা হয় সাধারণ জনগণের সাথে তারা বলেন, জনগণের উন্নয়ন করাই যার স্বপ্ন তিনি হলেন আমাদের প্রাণপ্রিয় মানুষ জাহিদ আহসান রাসেল। আলহাজ¦ মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এমপির তত্ত্বাবধানে হওয়া উন্নয়ন কর্মকান্ড বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, আলহাজ¦ মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল সর্বদা মানুষের কল্যাণের জন্য উন্নয়ন মূলক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি গাজীপুরবাসীর ভাগ্য উন্নয়ন ও তার পিতা শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টারের স্বপ্ন পূরণে যে উন্নয়নমুলক কাজ করে আসছেন তার মধ্যে আধুনিক চিকিৎসার জন্য ৫০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতাল, টঙ্গী ও গাজীপুর সদর হাসপাতালে দুটি নতুন এ্যাম্বুলেন্স প্রদান, টঙ্গীর অভিশপ্ত যানযট নিরসনে ২৬ কোটি টাকা ব্যায়ে তিন লেনবিশিষ্ট ৫৪০ মিটার উড়াল সেতু নির্মাণ, ক্রীড়া উন্নয়নে টঙ্গীতে নতুন স্টেডিয়াম, বিশ্ব ইজতেমা মাঠে ১১০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩১ টি ৩ তলা টয়লেট ভবন, ১৩ টি ডিপ- টিউবয়েল ও অজুখানা, টঙ্গী কেন্দ্রীয় ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করেছেন। তাছাড়া টঙ্গী সরকারি কলেজে প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন একাডেমিক ভবন ও ৪টি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু করেন। ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নৌ- বন্দর দু পাশ বাঁধাই, ২ কোটি ৪৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সাহাজ উদ্দিন সরকার ¯ু‹ল এন্ড কলেজের ৪ তলা একাডেমী ভবন নির্মাণ, মরকুনে ৬ তলা বিশিষ্ট ভবন, ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে রেললাইন টঙ্গী হতে জয়দেবপুর, টঙ্গী পশ্চিম ও গাছা থানার ৪ তলা বিশিষ্ট নতুন ভবন নির্মাণ, শ্রমিক ট্রেনিং ইনিস্টিটিউট স্থাপন, গাছা ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ, গাছা শফিপুরে ৫২ কোটি টাকা ব্যয়ে ইনিস্টিটিউট অব টেকনোলজি নির্মাণ, টঙ্গী ও গাজীপুর ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি প্রদান, কুনিয়া ৬ টি ¯ু‹ল ও কলেজ, নীলের পাড়ায় মা ও শিশু হাসপাতাল নির্মাণ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন, কাউলতীয়া, গাছা, টঙ্গী ও গাজীপুর ৭৮ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪২ কোটি টাকার ভবন নির্মাণ, বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সোলার বিতরণ। শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার অডিটোরিয়াম, এবং ৫ কোটি টাকা ব্যায়ে গাজীপুর শহীদ বরকত স্টেডিয়াম সংস্কার, রোভার পল্লী ডিগ্রী কলেজের ৪ তলা ভবন নির্মাণসহ আরও অনেক উন্নয়ন রয়েছে।
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, দেশের বিলুপ্তপ্রায় ২২টি গ্রামীন খেলাকে জনপ্রিয় করে তোলার জন্য সরকার উদ্যোগ নিয়েছে। এজন্য ২০কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তিনি বিলুপ্তপ্রায় গ্রামীন খেলাকে পুনরায় চালু করে পুরানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন। এদিকে ট্রাক মার্কার লোকজন যে নৌকার নেতাকর্মী বলে দাবি করেন। তারাই আবার জামাত, শিবির ও বিএনপিকে নিয়ে মাঠে নেমেছেন, শুধু নৌকাকে ডুবাতে।
এলাকার সাধারণ মানুষ এ প্রতিবেদককে আরো বলেন, জামাত,বিএনপি, সহ সকল অঙ্গ সংগঠন নিয়ে তারা মাঠে নেমেছেন ভাওয়াল বীরের বংশের আলো নিবিয়ে দেওয়ার জন্য। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ৪বারের এমপি থাকাকালীন আওয়ামীলীগের প্রবীন (পুরাতন) নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন না করা, এমন কি বর্তমানে নির্বাচন প্রচারণা/ পরিচালনা কমিটিতেও মূল্যায়ন না করায় এলাকার পুরাতন নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ,মান-অভিমান থাকলেও নৌকার স্বার্থে রাসেলের পাশে আছে থাকবে। সাধারণ জনগণ ও ত্যাগী পুরাতন নেতা-কর্মীরা জাহিদ আহসান রাসেল-এর কোন ক্ষতি মেনে নিবেনা। “ইনশাআল্লাহ” দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর ২ আসন থেকে রাসেলকে হারানো সম্ভব না।
প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ব্যাপকতর উন্নয়নের কারণেই টঙ্গী তথা গাজীপুর-২ আসনের সাধারন জনগণ আবারও আমাকে তাদের মুল্যবান ভোট দিয়ে জনগণের সেবা করার সুযোগ দিবেন বলে আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি।
গাজীপুর ২ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি ) নির্বাচনী গণসংযোগকালে ভোটারদের বলেছেন, কোন প্রার্থী টাকা দিলে নিবেন, কিন্তু ভোট দিবেন নৌকায়।
কেউ যদি ভোট চাইতে টাকা নিয়ে আসেন তাহলে সেই টাকা নিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের প্রতি তিনি অহ্বান জানিয়েছেন। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, “ভোট চাইতে অনেকেই এখন টাকা নিয়ে আসবেন। আপনাদেরকে শোষণ করে তারা এই টাকা কামিয়েছেন। যদি তারা টাকা দেয় তা রেখে দেবেন, কোনো কথা নাই।
“কিন্তু ভোট দেওয়ার সময় যোগ্য ব্যক্তিকে ভোট দেবেন। ভোট দেওয়ার সময় আপনারা নৌকা মার্কায় ভোটটা দেবেন। গাজীপুর শহরে গণসংযোগকালে তিনি ভোটারদের এসব কথা বলেন। জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি বলেন, নৌকা হচ্ছে উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রতীক। তাই নৌকার বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির দোসর। রোববার গাজীপুরের জয়দেবপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগকালে কয়েকটি মতবিনিময় ও পথ সভায় বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ কথা বলেন।
রাসেল গাজীপুর-২ সংসদীয় এলাকায় তার ১৫ বছরের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের চিত্র তুলে ধরে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দেয়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান। এসময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here