গাজীপুরে শিশু ধর্ষণ ও হত্যার রহস্য উদঘাটন আসামী গ্রেফতার

0
292
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক:  র‌্যাবের অভিযানে গাজীপুর মহানগরীর গাছা থানাধীন শরিফপুর এলাকায় চাঞ্চল্যকর ০৫ বছরের শিশু ধর্ষণ ও হত্যার রহস্য উদঘাটন এবং আসামী মোঃ রিফাত (১৬)’কে টঙ্গীর বোর্ডবাজার এলাকা হতে গ্রেফতার করেছে।
গত ২৭ জানুয়ারি ২০১৯ গাজীপুর মহানগরীর গাছা থানাধীন শরিফপুর এলাকায় একটি কাঁশবনে মোঃ হুমায়ুন কবিরের মেয়ে তাফান্নুম তাহি (০৫) এর লাশ উদ্ধার করা হয়। সে স্থানীয় মাতৃছায়া আইডিয়াল স্কুলের নার্সারি শ্রেণীর ছাত্রী। ভিকটিম তাফান্নুম তাহি কে ধর্ষণের পর মাথায় আঘাত করে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা যায়। ঘটনার দিন সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০টায় ভিকটিম তাহি তার বাসার পাশে নানার বাড়ীতে গোসল করতে যায়। পরবর্তীতে নানার বাড়িতে তাকে দেখতে না পেয়ে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজির শুরু করে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে একই দিন বিকালে বাড়ির পার্শ্ববর্তী কাশবনে ভিকটিম তাহির মরদেহ পাওয়া যায়।
নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে র‌্যাব-১ দ্রুততার সাথে ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ র‌্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল টঙ্গীর বোর্ডবাজার এলাকা হতে বর্ণিত ধর্ষন ও হত্যাকান্ডে জড়িত আসামী মোঃ রিফাত (১৬), পিতা- মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, সাং- চর ধলেশ্বর, থানা- মুলাদী, জেলা- বরিশাল, বর্তমান ঠিকানা সাং- শরিফপুর, থানা- গাছা, জিএমপি, গাজীপুর’কে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃত মোঃ রিফাত’কে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে স্থানীয় তাকফিয়াতুল উলুম মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। ভিকটিম তাহি সম্পর্কে রিফাতের খালাত বোন। ঘটনার দিন গত ২৭ জানুয়ারি ২০১৯ রিফাত তার পিতার কর্মস্থল স্থানীয় টার্কি মুরগীর ফার্ম হতে বাসায় আসার পথে নিহত তাহি এর সাথে তার নানীর বাড়ির পাশে তিন রাস্তার মোড়ে দেখা হয়। তখন ভিকটিম তাহি রিফাত’কে তার নানী কোথায় আছে জিজ্ঞাসা করলে সে তাহিকে তার নানীর কাছে নিয়ে যাবার মিথ্যা কথা বলে ফুসলিয়ে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী কাশফুলের জঙ্গলে নিয়ে যায়। রিফাত ভিকটিম তাহিকে জঙ্গলে নিয়ে যাওয়ার পর তার মুখ চেপে ধরে জোড়পূর্বক ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ভিকটিম তাহি কান্নাকাটি করে এবং বলে যে, বাড়ীতে গিয়ে সবাইকে সবকিছু বলে দিবে। এসময় রিফাত পার্শ্বে পড়ে থাকা ইট দিয়ে ভিকটিম তাহি’র মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। পরবর্তীতে রিফাত ভিকটিম তাহির মরদেহ কাশবনে ফেলে রেখে সেখান হতে পালিয়ে যায়।
গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here