গাজীপুর সিটি নির্বাচন,বৃষ্টিতেও বিরামহীন প্রচারণা ,ভেসে গেছে লাখ লাখ পোস্টার

0
81
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী নির্ধারিত প্রচার-প্রচারণার ৯ম দিন বুধবার বৃষ্টির পানিতে প্রতি›দ্ব›দ্বী প্রার্থীদের লাখ লাখ পোস্টার বিনষ্ট হয়েছে। সকালে টানা প্রায় এক ঘণ্টার বৃষ্টির কারণে প্রচারণায়ও ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচনী মাঠে প্রচারণার সময় আছে আর মাত্র ৬দিন। তবে বুধবার কোথাও কোথাও বৃষ্টি উপেক্ষা করেই চলে প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের বিরাহীন প্রচারণা। আবার অনেক প্রার্থীই ওই অলস সময়ে স্মার্ট ফোনে নেট প্রচারণায় ব্যস্ত ছিলেন। আবার ফোনে কল করেও বিভিন্ন এলাকার কর্মীদের কাছ থেকে নির্বাচনী মাঠের খোঁজ খবর নিয়েছেন। কোন কোন প্রার্থী বৃষ্টির মধ্যেই বিভিন্ন মার্কেট ও বিপণি বিতানে প্রচারণা করেছেন।
আওয়ামী লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আজমত উল্লা খান বুধবার দিনব্যাপী নগরীর কোনাবাড়ি থানা এলাকায় গণসংযোগ ও পথসভা করেন। তিনি সকাল ১০টায় ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কুদ্দুস মার্কেটে পথসভা থেকে গণসংযোগ শুরুর কথা থাকলেও বৃষ্টির জন্য কর্মসূচির একটু বিলম্ব ঘটে। সেখানে নির্ধারিত পথসভা শেষে আজমত উল্লা খান কোনাবাড়িস্ত কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল গেট এলাকায় ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচনী অফিস প্রাঙ্গনে পথসভা করেন। পরে তিনি ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দলীয় কার্যালয়, কোনাবাড়ি কলেজ মাঠ এবং ১০ নম্বর ওয়ার্ডের তেঁতুল তলা এলাকায় পথসভা করেন।
এসব পথসভায় আজমত উল্লা খান বলেন, আমরা একজোট হয়েছি, আগামী ২৫ তারিখ যে নির্বাচন হবে তা হবে সম্পূর্ণভাবে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন। যা হবে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য এবং জনগণের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন। এ নির্বাচন সম্পর্কে যারা মিথ্যাচার করছে আমি তাদের জবাব দিতে চাই। তিনি কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা ঐক্যবন্ধ হয়ে কাজ করছেন তার পরেও বলব, সময় যেহেতু অত্যন্ত কম, আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করব, আমাদের সেন্টাল কমিটিতে যারা রয়েছেন তাদেরকে অনুরোধ করব, আপনারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঘরে ঘরে গিয়ে আমার সালামটুকু পৌছাইয়ে দিবেন। তারা নৌকা প্রতীকে যেন ভোটটা দেন। পথসভায় তিনি আরো বলেন, আল্লাহ চাহেতু আমি নির্বাচিত হতে পারলে একটি পরিকল্পিত শহর গড়তে চাই। স্থানীয় সকরার বিশেষজ্ঞ যারা আছেন আমি তাদের সাথে বসে একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনা গ্রহণ করতে চাই। যাতে করে দায়িত্ব গ্রহণের সাথে সাথে ঐ দায়িত্বগুলো বাস্তবায়নে কাজ শুরু করতে পারি।

হাতি প্রতীকে স্বতন্ত্র মেয়রপ্রাথী সরকার শাহনূর ইসলাম রনি বুধবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত টঙ্গীর ৪৯ ও ৫০ নম্বর ওয়ার্ডের এরশাদ নগর ও গাজীপুরা এলাকায় এবং বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত নগরীর গাছা অঞ্চলের দক্ষিণ খালকৈর, উত্তর খালকৈর, ডেগের চালা, মৈরাণ, হারিকেন, মালেকের বাড়ি ও শরিফপুর এলাকায় গণসংযোগ করেন। এসময় রনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুল ইসলাম সরকার ষড়যন্ত্রের শিকার। সকলেই জানেন বাবাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে দীর্ঘ ১৮ বছর ফাঁসির সেলে আটকে রাখা হয়েছে। বিগত ২০০৬ সালে সাবেক টঙ্গী পৌর নির্বাচনে আপনারা আমার বাবার পক্ষে রায় দিয়েছিলেন। আপনাদের সেই রায়ও কেড়ে নেয়া হয়েছিলো।’ তিনি বলেন, ‘আপনারা অনেককে সুযোগ দিয়েছেন এবং ভবিষ্যতেও দিবেন। এবার আমাকে একটি বার সুযোগ দিন। কথা দিচ্ছি, আপনাদেরকে নিয়ে বসবাসযোগ্য সুন্দর একটি মহানগর গড়ে তুলবো ইনশা আল্লাহ।’
আমরাও চাই একটি ক্রেডিবল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হউক – নিয়াজ উদ্দিন ঃ জাতীয় পার্টির মনোনিত মেয়র পদপ্রার্থী সাবেক সচিব এম এম নিয়াজ উদ্দিন সকালে বৃষ্টি উপেক্ষা করে মহানগরের ভাওয়াল রাজবাড়ি আদালত পাড়া থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। এসময় তিনি আইনজীবী সমিতির বিভিন্ন হলে গিয়ে আইনজীবীদের সাথে কোশল বিনিময় ও করমর্দন করেন। তিনি সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে সকলের কাছে দোয়া ও ভোট প্রার্থনা করেন। এসময় তার সাথে দলীয় নেতা ও আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। টঙ্গীর এরশাদ নগর এলাকায় টেবিল ঘড়ি প্রতীকের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুনের প্রচারণায় মঙ্গলবার রাতে হামলার ঘটনা ঘটেছে হয়েছে এবং তাদের কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর হয়েছে। তবে জাপা প্রার্থী এম এম নিয়াজ উদ্দিন বলেন, আমার কাছে মনে হচ্ছে পরিবেশ এখনো ভাল আছে। নির্বাচন কমিশনও চাচ্ছে একটা ভাল ও সুন্দর নির্বাচন উপহার দিতে। আমি বলব একটি সুন্দর নির্বাচন করতে হলে সরকারের সদিচ্ছার উপর নির্ভর করবে। আমরাও চাই একটি ক্রেডিবল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হউক।
নগরবাসির উদ্দেশ্যে নিয়াজ উদ্দিন বলেন, আপনাদের মূল্যমান ভোট দিয়ে যদি আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেন তবে, আল্লাহর রহমতে আমি সকল শ্রেণীর প্রতিনিধিদের নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনকে একটি আধুনিক ও সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তোলব। উন্নত শিক্ষার জন্য বিশ্ব বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করব, বেকারত্ব দুরিকরণের জন্য নতুন নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব, বস্তিবাসির জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করব। নগর পরিকল্পনাবিদদের পরামর্শ নিয়ে একটি পরিকল্পিত সিটি গড়তে যা যা করা দরকার আমি তার সবকিছুই করব ইনশাল্লাহ।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here