টঙ্গীতে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ৫ জন গ্রেপ্তার

0
118
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : টঙ্গীতে বাংলালিংক বিক্রয় প্রতিনিধি জাহিদ হাসান জনিকে (২৪) আত্মহত্যায় প্ররোচনার দায়ে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পশ্চিম থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের গ্রেফতার করে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।
নিহত জনি ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার বিয়ার্তা গ্রামের মৃত রোকন উদ্দিনের ছেলে। গ্রেফতাররা হলেন-বাংলালিংক কোম্পানির প্রতিনিধি হেমায়েত হোসেন (৩৩), খোরশেদ আলম (৩০), বিল্লাল (৩০), বাড়ির মালিক লিয়াকত আলী খান ও তার মেয়ের জামাই সালাহউদ্দিন শুভ।
জানা যায়, জাহিদ হাসান জনি পূবাইল থানা এলাকায় বাংলালিংক সিম কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি হিসাবে চাকরি করতেন। সিম বিক্রির টাকা সময়মতো বুঝিয়ে না দিয়ে তিনি স্ত্রীকে নিয়ে সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি রোডে আউচপাড়া মেরিট স্কুলের পাশে লিয়াকত আলী খানের বাড়ির ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করেন।
কোম্পানির প্রতিনিধি হেমায়েত হোসেন, খোরশেদ আলম ও বিল্লাল তাকে টাকার জন্য বারবার চাপ দিতে থাকেন। একপর্যায়ে মঙ্গলবার জনির বাসায় এসে তাকে টাকার জন্য চাপ দেয়। সে সব টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে উপরোল্লিখিত পাঁচজন যোগসাজশে ওই বাড়ির একটি কক্ষে তাকে আটকে রেখে বাইরে থেকে তালাবদ্ধ করে দেয় এবং তার স্ত্রী নুসরাত জাহান তিশাকে বাড়িওয়ালার মেয়ের কক্ষে থাকতে দেয়। এতে তিনি অপমান, রাগ ও ক্ষোভে ওই কক্ষেই মঙ্গলবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আত্মহত্যায় প্ররোচনার দায়ে দায়ের করা মামলায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here