টঙ্গীতে ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীর পিতা ও তার পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে জিডি

0
35
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : টঙ্গীতে ধর্ষণ মামলা তুলে না নিলে মামলার বাদীকে হত্যার হুমকি দিয়েছে আসামীর পরিবার। গতকাল শুক্রবার মামলার বাদী ও ধর্ষিতার পিতা তার নিজ ও পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় এ ব্যাপারে জিডি নং ১৪৭৯ দায়ের করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শুভ মন্ডল জানান, টঙ্গীর বড় দেওড়ায় বাড়িওয়ালার ছেলে কর্তৃক ভাড়াটিয়ার দশম শ্রেণী পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষনের অভিযোগে অভিযুক্ত নাহিদুল ইসলাম সজিবকে (৩৩) টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ গত ২০ অক্টোবর গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে পাঠানো হয়।
জিডিসূত্রে জানা যায়, গ্রেফতারের পর থেকে মামলার বাদি ও ধর্ষিতার পিতার ফোনে কিছু অচেনা নাম্বার থেকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য নানাবিধ হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছিলো। সর্বশেষ আসামীর ভাই নান্টু, মামা টুটুল ও তাদের সহযোগী আরো কয়েকজন সরাসরি ধর্ষিতার পিতাকে হত্যা ও তার মেয়েসহ পরিবারকে তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয়।
উল্লেখ্য, বড় দেওড়া কুদরত মৃধার বাড়িতে মামলার বাদী তার পরিবারকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন। তিনি স্যানিটারী মিস্ত্রির কাজ করেন এবং তার স্ত্রী একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। গত ২৯ সেপ্টেম্বর সকালে তারা প্রতিদিনের ন্যায় মেয়েকে বাসায় একা রেখে কর্মস্থলে যান। ওই দিন সকাল সাড়ে ৮টায় বাড়িওয়ালার ছেলে সজিব মেয়েটিকে ঘরে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। পরে মামলা থেকে রক্ষা পেতে একটি অলিখিত স্ট্যাম্পে জোরপূর্বক মেয়েটির স্বাক্ষর নেয়।
এ ঘটনা জানাজানির পর ধর্ষিতার পরিবারটিকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে ঘটনা ধাপাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হয়। অবশেষে মেয়েটির অসহায় পিতা নিরুপায় হয়ে এবং সকল ভয়ভীতি উপেক্ষা করে টঙ্গী পশ্চিম থানায় মামলা করেন।
পুলিশ মামলার আসামী নাহিদুল ইসলাম সজিবকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায়। গ্রেফতারের সময় পুলিশ আসামীর শরীর তল্লাশি করে প্যান্টের পকেটে বেশ কিছু ইয়াবা ট্যাবলেটও পায় বলে মামলার বাদীসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here