টঙ্গীতে স্ত্রীর মামলায় এএসআই শ্রীঘরে

0
31
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : গাজীপুরের টঙ্গীতে পারিবারিক কলহের জেরে নারী পুলিশ কর্মকর্তার দায়েরকৃত মামলায় তার পুলিশ স্বামীকে অত্যন্ত সংগোপনে শ্রীঘরে পাঠানো হয়েছে। থানার এএসআই লিজা আক্তার (৩২) তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করলে অভিযুক্ত এএসআই এদেল হককে গ্রেফতার করে সোমবার জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।
লিজা টাঙ্গাইলের কালিহাতি থানার লুহুরিয়া গ্রামের মেয়ে। অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা এএসআই এদেল হক কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার ছাটমাধাই গ্রামের অধিবাসী। তিনি খুলনা জেলার সদর রেলওয়ে (জিআরপি) ফাঁড়িতে কর্মরত।
মামলা সূত্রে জানা যায়, এক বছর পূর্বে স্বামী-স্ত্রী উভয়ের দ্বিতীয় বিবাহ হয়। এর কিছুদিন পর হতে অভিযুক্ত এদেল হক তার প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিতে লিজার কাছে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। ২৪ ফেব্রুয়ারি এদেল হক লিজার বর্তমান কর্মস্থল টঙ্গী পূর্ব থানায় এসে পুনরায় তার নিকট উল্লিখিত টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয় এবং এদেল হক তার গ্রামের বাডিতে চলে যায়। পরদিন রোববার সন্ধ্যায় টঙ্গী পূর্ব থানার পুলিশ কোয়ার্টারের ভেতর যৌতুকের দাবিকৃত টাকা নিয়ে লিজার সঙ্গে তার স্বামীর তুমুল ঝগড়া হয়। এ সময় তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করার একপর্যায়ে রুমে থাকা ধারালো বঁটি দিয়ে কোপ দিলে মাথা ও হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়ে আহত হন লিজা।
যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মো. জাবেদ মাসুদ বলেন, এ ঘটনায় মামলা শেষে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here