দাম্পত্য কলহের জের, স্বামীর দেয়া আগুনে স্ত্রীর মৃত্যু

0
298
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে পরপারে পাড়ি জমান ৩২ বছর বয়সী শিউলি আক্তার। গভীর রাতে পাষন্ড স্বামী সহিদের দেয়া আগুনে দগ্ধ যন্ত্রনায় কাতরাতে কাতরাতে মঙ্গলবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়।
ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার গভীর রাতে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মুলাইদ গ্রামের মাফিয়া আক্তারের বাড়িতে।
নিহত শিউলি ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের শুক্কুর আলীর মেয়ে এবং বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার মোতালেব হাওলাদারের ছেলে মো. সাহিদ হাওলাদারের স্ত্রী। তারা উপজেলার মুলাইদ গ্রামের মাফিয়া আক্তারের বাড়ির ভাড়াটে।
শ্রীপুর থানা পুলিশের এসআই আব্দুল মালেক জানান, ৯ বছর আগে প্রেম করে শিউলী ও সহিদের বিয়ে হয়। এটি ছিল সাহিদ ও শিউলী উভয়েরই দ্বিতীয় বিয়ে। বেশ কিছুদিন ধরে তারা মুলাইদ এলাকার মাফিয়া আক্তারের ঘর ভাড়া নিয়ে থাকেন। পারিবারিক ও দাম্পত্য কলহের জেরে বিভিন্ন সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো। স্বামী তাকে মারধরও করতো। সোমবার রাতেও কারখানা থেকে পাওয়া বেতন স্বামী কেড়ে নিতে চাইলে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে মধ্যরাতে নিজ কক্ষে যখন ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন স্ত্রী শিউলি আক্তার তখন শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় পাষন্ড স্বামী। এ সময় স্বামী পালাতে গেলে শিউলী তাকে চেপে ধরে মেঝেতে পড়ে যায় এবং স্বামীর শরীরেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে স্বামীর দুই হাত দ্বগ্ধ হয়।
এসময় শিউলীর ডাক চিৎকার শুনে বাড়ির লোকজন ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে এবং তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুরে শিউলী মারা যান। সহিদ সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পুলিশের নজরদারীতে তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
বাড়ির মালিক মাফিয়া আক্তার জানান, সোমবার মধ্যরাতে আমরা শিউলির ঘর থেকে কান্নার শব্দ পেয়ে গিয়ে দেখি তাদের রুমের দরজা ভেতর থেকে আটকানো। পরে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে মুমূর্ষু অবস্থায় শিউলি ও তার স্বামীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here