দুই দিন করে বিশ্ব ইজতেমার দায়িত্বে দুই পক্ষ

0
323
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনে বিবদমান দুই পক্ষে সমঝোতা হয়েছে। এ লক্ষ্যে তারা কর্মপন্থা নির্ধারণ করেছে। বুধবার বিকালে ময়দানে মাওলানা সা’দ ও মাওলানা যোবায়েরপন্থিদের সাতজন করে প্রতিনিধি নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হন তারা। এতে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী স্থানীয় এমপি জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (ডিআইজি) ওয়াই এম বেলালুর রহমান, যোবায়ের অনুসারী ইঞ্জিনিয়ার মেছবাউদ্দিন, সা’দ অনুসারী ইঞ্জিনিয়ার মহিবুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভায় ইজতেমার পরিচালনা কমিটির সা’দ ও জোবায়ের পন্থী শীর্ষ মুরুব্বীরা উপস্থিত ছিলেন। দুই পক্ষকে নিয়ে দুই ঘন্টাব্যাপী আলোচনা শেষে মন্ত্রী প্রস্তুতি কাজের উদ্বোধন করেন। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এড. জাহাঙ্গীর আলম, জিএমপি পুলিশ কমিশনার ওয়াইএম বেলালুর রহমান ও ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বীরাসহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। ১০ শর্তে দু’পক্ষ বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানে সম্মতি জানান। উদ্বোধন শেষে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের সার্বিক বিষয় নিয়ে দুই ঘন্টাব্যাপী ১০টি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।
আলোচনার বিষয়গুলো হচ্ছে-আগামী ১৫ ও ১৬ ফেব্রুয়ারী মাওলানা জোবায়ের অনুসারীগণ ইজতেমা শুরু করে ১৬ ফেব্রুয়ারী মাগরিবের পূর্বে আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ করে চলে যাবে। ১৭ ফেব্রুয়ারী ফজরের নামাজের পরে ইজতেমা মাঠে প্রবেশ করবে মাওলানা সা’দ অনুসারীগণ এবং ইজতেমার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করবেন। ১৮ ফেব্রুয়ারী ওয়াসিফুল ইসলাম অনুসারীগণ ইজতেমা মাঠে প্রবেশ করে তাদের দুইদিনের ইজতেমার কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।
মাওলানা জোবায়ের অনুসারীরা বুধবার থেকে ইজতেমা মাঠ প্রস্তুতি কাজ শুরু করেছেন। মাওলানা জোবায়ের পন্থীগণ ১৬ ফেব্রুয়ারী বাদ মাগরিব আখেরী মোনাজাত শেষ করে মাঠ ছেড়ে চলে যাবেন। জোবায়ের পন্থীলোকজন প্রশাসনের উপস্থিতিতে সা’দ পন্থীদের কাছে মাঠ বুঝিয়ে দিবেন। দুই পক্ষের ইজতেমা শেষে ইজতেমা মাঠের সরঞ্জামাদী বিষয়ে দুই পক্ষের মুরুব্বীরা বসে সিদ্ধান্ত নিবেন। ইজতেমা শেষে ময়দানে মুসল্লীদের ব্যক্তিগত মালছামানা ছাড়া বাকি সকল মালামাল স্থানীয় প্রশাসনের দায়িত্বে থাকবে।
মাওলানা জোবায়ের অনুসারী বিদেশী মেহমানরা দুইদিন ইজতেমা শেষে উত্তরা হাজী ক্যাম্পে অবস্থান করবেন।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মাওলানা সা’দ সাহেব বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণ করবেন না। ইজতেমা চলাকালীন উভয় পক্ষের তাবলীগ অনুসারী মুসল্লীরা টঙ্গীসহ বিভিন্ন এলাকার মসজিদে শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করবেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here