প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সরকারের গৃহীত ব্যবস্থায় সন্তুষ্ট অভিভাবকরা

0
246
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: ২০১৯ সালের চলমান মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সরকারের নানা পদক্ষেপ সফল হয়েছে। এ পর্যন্ত প্রশ্নফাঁসের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। বরং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কঠোর নির্দেশনা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা না ঘটায় সন্তুষ্ট অভিভাবকরা। তারা বলছেন, প্রশ্ন ফাঁসের মতো অপরাধ ও গুজব ঠেকাতে সরকারের নানা পদক্ষেপের ফলে সন্তানের মেধার বিকাশ নিয়ে তারা আশাবাদী।
বিগত সময়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সরকারের অবস্থানকে ধরে রাখতে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষায় সজাগ নজর রাখছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এরইমধ্যে প্রশ্নপত্র ফাঁস অপতৎপরতায় জড়িত প্রশ্নফাঁস চক্রের অন্তত দেড় শতাধিক সদস্যকে আটক করেছে। যার ফলে এ চক্রের অন্যান্য সদস্যরা প্রশ্নফাঁসের মতো তৎপরতায় জড়াতে সাহস পাচ্ছে না।
রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার বাসিন্দা আরিফুর রহমান বলেন, আমার মেয়ে ঢাকা ভিকারুন্নেছা নুন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। আমার মেয়ে বেশ ভালো ছাত্রী। ও ভালো করবে। তবে ভালো লাগছে এই ভেবে যে, প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে মেধাবীরাও মেধার যথার্থ মূল্যায়ন পায় না। এবারে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে আমরা অভিভাবকরা সন্তুষ্ট। আশা করি এই ধারা অব্যাহত থাকবে। এতে শিক্ষার মানও নিশ্চিত হবে।
এদিকে এই ধারা অব্যাহত রাখতে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার সময় আগ্রহী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে ভুয়া প্রশ্নপত্র বিক্রি করে আসছে প্রতারক চক্র। প্রশ্নপত্র ফাঁস ও এ সংক্রান্ত গুজব থেকে দেশ, জাতি এবং শিক্ষার্থীদের বাঁচাতে অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে বলে মত বিশ্লেষকদের। তারা বলছেন, সন্তানদের এই পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন কেবল অভিভাবকরাই। সন্তান এই অপরাধের সঙ্গে জড়িত আছে কিনা সেটা অভিভাবকদের জানার কথা। তাই অভিভাবকরা সচেতন হলে এই সমস্যা পুরোপুরি সমাধান হবে।
তারা আরও বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ব্যাধি রুখতে যূথবদ্ধভাবে দাঁড়াতে হবে। জাতি বিনাশী, প্রজন্ম ধ্বংসকারী এই অপক্রিয়া এখনই কঠোরভাবে ঠেকাতে না পারলে আমাদের সর্বনাশের খতিয়ান আরও দীর্ঘ হবে। এমনটি চলতে পারে না, চলতে দেওয়াও যায় না। সরকার ও প্রশাসনের দায়িত্বশীলরাসহ সচেতন সবাইকে দৃঢ়ভাবে দাঁড়াতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here