বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্যোগে ঐতিহাসিক জেলহত্যা দিবস স্মরণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

0
16
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : আজ সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্যোগে ঐতিহাসিক জেলহত্যা দিবস স্মরণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ৩ নভেম্বর “জেলহত্যা: মুক্তিযুদ্ধের পক্ষশক্তি নির্মুলে ষড়যন্ত্র” শীর্ষক আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান লাল্টুর সঞ্চালনানায় এবং ডুয়েট এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ মশিউর রহমান, মুহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাছিম আক্তার, কুষ্টিয়া ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. শাহজাহান মন্ডল, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ মহিউদ্দিন মানিক, বঙ্গবন্ধু পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. শেখ আব্দুল্লাহ আল-মামুন, রেহান সোবহান, সাংগঠনিক সম্পাদক ড. লিয়াকত হোসনে মোড়ল, মোঃ লুৎফর রহমান প্রমুখ।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতীয়তাবাদী মহান নেতা ছিলেন। বাংলাদেশের মুক্তি ও স্বাধীনতার জন্য পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দীর্ঘ ২৪ বছর আন্দোলন-সংগ্রাম করেছেন। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ সফলভাবে পরিচালনা এবং মুজিবনগর সরকারের সফল নেতৃত্বদানকারী জাতীয় চারনেতা বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে আমাদের স্বাধীনতার বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন। কিন্তু জাতির দুর্ভাগ্য স্বাধীনতার মাত্র সাড়ে ৩ বছরের মাথায় আমরা বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতাকে হারিয়েছি। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি ও স্বাধীনতাবিরোধীরা এবং আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেলহত্যা সংঘটিত হয়েছিল। খুনী চক্রের একটাই উদ্দেশ্য ছিল মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও স্বাধীনতার মূল্যবোধ বিনষ্ট করা এবং পাকিস্তানী ভাবধারায় বাংলাদেশকে পরিচালনা করা।
মুহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেলহত্যা কলঙ্কজনক অধ্যায়। একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ গণতদন্ত কমিশন গঠন করে এই সমস্ত হত্যাকান্ডের সাথে যারা মূল পরিকল্পনাকারী তাদের বিচার সম্পন্ন করা।
চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাছিম আক্তার বলেন, জেলহত্যাকান্ডের মাধ্যমে খুনী চক্র ইতিহাসের নির্মম, নিষ্ঠুর ও নৃশংসতা ঘটিয়েছে। কারাগার নিরাপদ জায়গা হলেও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিনষ্ট করার জন্য এবং ইতিহাস বিকৃত করার জন্য কারাগারের অভ্যান্তরে খুনী মোসতাক ও জিয়ার নেতৃত্বে এই বর্বর কাজটি সম্পাদন হয়েছিল।
কুষ্টিয়া ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. শাহজাহান মন্ডল বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেলহত্যা একই ধারাবাহিকতায় সংঘটিত হয়েছিল। বাঙালি জাতির জীবনে যে অন্ধকারের অমানিসা ও কলঙ্ক নেপন হয়েছিল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেলহত্যার বিচার কার্য সম্পাদন করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here