বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের জার্নালে প্রদীপ অধিকারীর Use Solar Save Water প্রকল্প

0
125
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক : জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর প্রকাশিত বিজ্ঞান জার্নালে ঠাঁই পেয়েছে টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজের সাবেক শিক্ষক প্রদীপ কুমার অধিকারীর প্রকল্প প্রতিবেদন। প্রকল্পটির নাম Use Solar Save Water ।
প্রকল্পের উদ্দেশ্য, অত্যাসন্ন পানি সংকটের সমাধান এবং এ ক্ষেত্রে সৌর শক্তির ব্যবহার। আমাদের পানি সংকট বহুমাত্রিক। একদিকে ভূগর্ভস্থ পানিস্তর প্রতি বছর ৬ ফুট নেমে যাচ্ছে অপর দিকে প্রকৃতির অবারিত দান বছরে প্রায় ২০০০ মিলিমিটর বৃষ্টির পানি অব্যবহৃত। এই বিশুদ্ধ প্রাকৃতিক পানি ভবনের ছাদ থেকে সরাসরি যাচ্ছে ড্রেনে। ড্রেনের আবর্জনা, মল-মূত্রের সাথে মিশে তৈরি হচ্ছে দুর্গন্ধময় জলাবদ্ধতা। অপরিকল্পিত নগরায়ন, জনঅসেতনতা, ঘনবসতি, রাস্তা-ড্রেন-খাল-জলাধারের অপ্রতুলতা, পলিথিনের ব্যবহার সবকিছু মিলিয়ে জলাবদ্ধতা সমস্যা সমাধান দুঃসাধ্য। প্রচলিত অবকাঠামো টিকিয়ে রেখে সমস্যা সমাধানের সহজ উপায় হচ্ছে বৃষ্টির পানি ভবনের ছাদে আটকে রেখে ব্যবহার করা। যেহেতু শহরাঞ্চলের প্রায় ৮০% ভবনাবৃত, ফলে ৮০% পানি ব্যবহার হয়ে যাবে এবং জলাবদ্ধতা ৮০% হ্রাস পাবে, এবং বৃষ্টির পানি ব্যবহারের ফলে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর ২ ফুট কম হ্রাস পাবে। এর জন্য প্রয়োজন ভবন মালিকগণের সচেতনতা এবং ছাদের পানি ব্যবহারে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি।


এ ক্ষেত্রে তার স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিটি হচ্ছে, “টু ওয়ে ভাল্ভ”। ভালভটি সেন্সর, মােইক্রোকন্ট্রোলার, সলিনয়েড ভালভ ইত্যাদির সমন্বয়ে গঠিত একটি স্মার্ট সিস্টেম, যা ১/২ ইঞ্চি, ৩/৪ ইঞ্চি ১ ইঞ্চি ইত্যাদি যে কোন ব্যাসের পাইপের সাথে ব্যবহার উপযোগী। ভালভটি ভবনের ছাদের ঘেড়াও এর সাথে চিত্রানুযায়ী সমন্বয় করে বসাতে হবে। ঢাকা এবং আশে পাশের অঞ্চলের শহরের জন্য ছাদের ঘেড়াওয়ের উচ্চতা হতে হবে ২ ফুট কারণ এই এলাকায় একটানা সর্ব্বোচ্চ ২০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। ছাদ অবশ্যই টাইলস করা এবং পরিষ্কার থাকতে হবে। যখন বৃষ্টি থাকবে না তখন টু ওয়ে ভালভের মাধমে ছাদের ট্যাংক থেকে পানি বিভিন্ন ইউনিটে যাবে। বৃষ্টি নামলে স্বয়ংক্রিয় ভাবে ট্যাংকের লাইন বন্ধ হয়ে যাবে, ছাদের পানি টু ওয়ে ভালভের মাধ্যমে বিভিন্ন ইউনিটে যাবে। আবার ছাদের পানি শেষ হয়ে গেলে টু ওয়ে ভালভ স্বয়ংক্রিয় ভাবে ট্যাংকের লাইন খুলে দেবে। ভাল্বের উপরে ব্যবহৃত সোলার প্যানেল বাল্বটিকে প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ শক্তি সরবরাহ করবে। পরিশোধনের ঝামেলা এড়াতে বৃষ্টির পানি শুধুমাত্র বাথরুমে ব্যবহারের জন্য নির্দেশিত হয়েছে কারণ আমাদের ব্যবহৃত মোট পানির ৬৫% শতাংশ বাথরুমে ব্যবহার হয়। মোট প্রকল্পটির রয়েছে আরো ৪ টি পর্ব। রয়েছে স্মার্ট ওয়াটার ট্যাপ, স্মার্ট ওয়াটার মিটার, ট্যাংক ওয়াটার লেবেল মনিটরিং সিস্টেম প্রত্যেকটি জন্য রয়েছে গাঠনিক দিক, উপকরণ, রয়েছে প্রোগ্রামিং। বিশাল প্রকল্পটির এখানে শুধু উপক্রমণিকাি উপস্থাপন করা হল। প্রকল্পটি নানা ঘাত প্রতিঘাতের মাধ্যমে পরীক্ষিত এবং প্রমাণিত পাশাপাশি প্রত্যেক পর্বেরই রয়েছে দীর্ঘ ব্যর্থতা।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here