রায়পুরায় বসত বাড়িতে অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষয় – ক্ষতি

0
186
728×90 Banner

নরসিংদী থেকে হলধর দাস: নরসিংদীর রায়পুরায় বৈদ্যতিক শর্ট সার্কিটের আগুনে ৩টি বসত ঘর আগুনে পুড়ে বিনষ্ট হয়ে গেছে। ১৮ জানুয়ারি শুক্রবার সকালে উপজেলার পূর্বপাড়া নবদ্বীপ চৌধুরীর বাড়িতে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের লেলিহান শিখা মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে পার্শ্ববর্তী আরেকটি ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় প্রতিবেশীরা আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। অগ্নিকান্ডে নগদ ৩ লাখ টাকাসহ আনুমানিক ১২ লাখ টাকার মালামাল ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান বাড়ির মালিক।
ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ীর মালিক নবদ্বীপ চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, সকাল ৯ টার দিকে বাড়ির নিজ বসত ঘরে বৈদ্যতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে তার পার্শ্ববর্তী অপর দুই ভাড়াটিয়ার ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে তার এবং ভাড়াটিয়াদের ঘরের সকল মালামাল পুড়ে বিনষ্ট হয়ে যায়। পড়নের কাপড় ছাড়া কেউই কোন মালা-মাল রক্ষা করতে পারেনি। এতে তার প্রায় ৭ লক্ষ টাকাসহ ভাড়াটিয়াদের মিলিয়ে প্রায় ১২ লক্ষ টাকার মালামাল ক্ষতি সাধিত হয়। তিনি গরীব খেটে খাওয়া দুই ভাড়াটিয়া পরিবারসহ তাদেরকে পুনর্বাসনের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানান।
বাড়ির ভাড়াটিয়া সজল মালাকার জানান, তিনি একজন সিএনজি চালক। ভাড়া সিএনজি চালিয়ে অনেক কষ্টে তিনি সংসার চালান। তাই নিজে সি এন জি কেনার জন্যে একটি এনজিও সংস্থা থেকে ৩ লাখ টাকা লোন নেন । সেই টাকা ঘরে রাখা ছিল। কিন্তু আগুনে ৩ লাখ টাকা ঘরের আসবাবপত্র ও অন্যান্য জিনিসসহ প্রায় ৪ টাকার মালামাল পুড়ে বিনষ্ট হয়ে যায়।
অপর ভাড়াটিয়া শ্যামলী পাল জানান, সে অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালায়। তার একমাত্র মেয়ে অষ্টম শেণিতে পড়ে। ঘরে বিভিন্ন জিনিসপত্রসহ প্রায় ১ লক্ষ টাকার মালামাল সেই সাথে মেয়ের পড়ার বইগুলিও পুঁড়ে বিনষ্ট হয়ে গেছে।
রায়পুরা ফায়ার সার্ভিস এর টিম লিডার সৈয়দ আসাদুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনি। অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি বৈদ্যুতিক র্শট সার্কিট থেকে ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।’
খবর পেয়ে রায়পুরা পৌর মেয়র জামাল মোল্লা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল গনি ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন। এসময় পৌর মেয়র ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তদন্ত সাপেক্ষে ক্ষতিগ্রস্থতের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় সমাজ সেবক শাহীন মোল্লা, মো: দানা মিয়া, মো: রতন মিয়া,মো: সাদ্দাম হোসেন , খোকন সাহা ক্ষতিগ্রস্তদের খাবার ও শাড়ী, লুঙ্গির ব্যবস্থা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here