৫ দফা দাবিতে কঠোর কর্মসূচিতে যাচ্ছে সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ

0
20
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : দেশের সর্ব বৃহত্তম একমাত্র সংগঠন বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের জাতীয় প্রতিনিধি সভা, শনিবার বেলা ১০ ঘটিকায় জাতীয় প্রেস ক্লাব, ঢাকায় সংগঠনের সভাপতি এম এ হান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জননেতা শাজাহান খান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা, বাংলাদেশের ওয়ার্কার পার্টি ঢাকা মহানগরের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড আবুল হোসাইন, বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান পৃষ্ঠপোষক মরহুম আব্দুল আজিজ এর সুযোগ্য নাতি মোঃ খোরশেদ আলম মজুমদার, মরহুম আব্দুল আজিজ এর সুযোগ্য পুত্র এবং সম্মানীত উপদেষ্টা আব্দুল মান্নান, সমন্বয় পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব মরহুম সালেউদ্দিন সেলিম এর একমাত্র কন্যা এবং সম্মানীত আইন বিষয়ক উপদেষ্টা এ্যাডভোকেট সাবেরা শিপ্রা। আরও উপস্থিত ছিলেন সমন্বয় পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, বাংলাদেশ ৩য় শ্রেণী সরকারি কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এবং বাংলাদেশ ৪র্থ শ্রেণী সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ কেন্দ্রীয় এবং দেশের বিভিন্ন বিভাগ, মহানগর ও জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ।
সভার পূর্বে একটি শান্তিপূর্ণ র‌্যালি বের করা হয়। এরপর পবিত্র কোরআনে পাক থেকে তেলাওয়াতের পর সংগঠনের মহাসচিব জনাব মোঃ নিজামউদ্দিন পাটোয়ারী দেশের গণকর্মচারীদের বেতন বৈষম্য, জাতীয় বেতন কমিশন গঠনসহ সংগঠনের দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের ঐতিহ্য তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।
সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি মোঃ সেলিম ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ৩য় শ্রেণীর সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি ও সমন্বয় পরিষদের কার্যকরী সভাপতি মোঃ ইব্রাহীম খলিল, কার্যকরী সভাপতি মোঃ আব্দুল কাদের, মোঃ জাকির হোসেন, মনির আহম্মেদ, মোঃ মোজাম্মেল হক, ৪র্থ শ্রেণীর সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি এবং সমন্বয় পরিষদের অতিরিক্ত মহাসচিব জনাব মোঃ আজিম, ৪র্থ শ্রেণীর সরকারি কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং সমন্বয় পরিষদের অতিরিক্ত মহাসচিব মোঃ মোক্তার হোসেন। উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি আম্বিয়া বেগম পলি, মোজাফফর হোসেন বাবুল, মোঃ শামসুল হক সুজন, মোঃ শাহজাহান, এ.কে.এম সাইফুল ইসলাম, মোঃ জাহাঙ্গির হোসেন, আবুল কাশেম খাঁন, এম.এ. বারী, লায়ন সাইফুল ইসলাম, মোঃ জসিম উদ্দিন, কাবুল হোসেন মোল্লা, মোঃ হাফিজুল্লা, লোকমান হোসেন, মোঃ মরন চাঁদ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ শাহীন রেজা, মোঃ কামরুজ্জামান কমল, আব্দুল জব্বার, বাবুল আকন, যুগ্ন মহাসচিব মোঃ মনির হোসেন, খন্দকার আক্কাছ, আলী আহমেদ, মোঃ রবিউল ইসলাম, মাহবুবুর হক তালুকদার, মোঃ আরিফুল ইসলাম, মোঃ আলী মর্তুজা, মোঃ শহিদুল ইসলাম, মোঃ শিপন মিয়া, মোঃ মনিরুল ইসলাম, মোঃ জিয়াউর রহমান, মোঃ সোহরাব হোসেন, আব্দুল মান্নাফ আকন্দ, সংগঠনিক সচিব মোঃ শহিদুল ইসলাম মিন্টু, শ্রীঃ গঙ্গা চৌহান, গোলাম রসুল, রিপন হোসেন, আফরোজা পারভিন, মোঃ মজিবুর রহমান, আব্দুল রাজ্জাক, মোঃ সাজ্জাদুর রহমান, শিকদার মাহবুব হোসেন, আব্দুর রব, মোঃ তোফাজ্জল হোসেন নাজির, আব্দুল মতিন, মামুন মোল্লা, মমতাজুল আলম শিকদার, সহ-সাংগঠনিক সচিব, মোঃ নূরুল ইসলাম, ছালমা আক্তার বর্ষা, কামাল হোসেন মিঠু, কাজী আফতাব উদ্দিন রাশেল, মোঃ শওকত হোসেন, মোঃ আলাউদ্দিন, ফুয়াদ হোসেন কাদরী, সোহেল রানা, মোঃ আলমগীর, মোঃ শমিম, মোঃ সবুজ মিয়া, মোঃ সাদিকুর রহমান সুমন, মোঃ আলমগীর হোসেন, আ: রশিদ, সেলিম শেখ, ওমর ফারুক, মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ রাশেদ, মোঃ জামাল হোসেন, খাদিজা খানম, মেহেদী হাসান গাজী, মোঃ শামসুউদ্দিন, মোঃ বাবুল, মোঃ নজরুল ইসলামসহ ঢাকা মহানগরী ও জেলা পর্যায়ের প্রায় ৩ (তিন) শতাধিক প্রতিনিধি।
বক্তাগন বলেন, ১৯৮৮ সালের ৬ সেপ্টেম্বর তৎকালীন প্রশাসনের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে সমন্বয় পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান পৃষ্টপোষক মরহুম আঃ আজিজের দিকনির্দেশনায় সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব মরহুম সালেউদ্দিন সেলিমের অক্লান্ত পরিশ্রমে গঠিত হয় “বাংলাদেশ সরকারী কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ”
পরবর্তীতে মরহুম সালে উদ্দিন সেলিমের নেতৃত্বে আর্ন্তজাতিক পরিমন্ডলে সংগঠনটি ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে। এই সংগঠনের মাধ্যমে দেশের নিম্নআয়ের কর্মচারীদের অনেক দাবী আদায় হয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে সংগঠনের ৫ দফা দাবী সরকারের নিকট পেশ করা হয়েছে। মাননীয় প্রধান অতিথি সংগঠনের যৌক্তিক দাবীগুলোর সাথে একমত পোষণ করেন।
সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, সমন্বয় পরিষদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে গড়া সংগঠন। জাতির পিতার প্রতি অকৃত্রিম শ্রদ্ধা ও অঘাধ ভালবাসা থাকায় এবং তারই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকায় সংগঠনটি দাবী আদায়ের জন্য রাজপথে নামতে চায় না। বর্তমান বাজারদরের বাস্তবতার প্রেক্ষাপটে সরকারি কর্মচারীগণ দুর্বিসহ জীবন-যাপন করছে। তাই আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ এর মধ্যে জাতীয় বেতন কমিশন গঠনসহ সমন্বয় পরিষদের ৫ দফা দাবী না মানলে সারা বাংলাদেশের কর্মচারীদের নিয়ে ঢাকায় কর্মচারী মহাসমাবেশ থেকে পরবর্তী কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হবে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here