একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন আজ

0
170
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক: আজ বুধবার জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসছে। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বিপুল বিজয়ের পর এটাই হবে সংসদের প্রথম অধিবেশন। এই সংসদে আওয়ামী লীগ তার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জয় পেয়েছে। ভোট হওয়া ২৯৯ আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৫৭টিতে জয় পেয়েছে, জোটগতভাবে তারা পেয়েছে ২৮৮ আসন। এই নিরঙ্কুশ বিজয়ের কারণে আওয়ামী লীগ ৭ জানুয়ারি সরকার গঠন করেছে। আজ সংসদে প্রথম অধিবেশন শুরুর আগেই আওয়ামী লীগ তার সংসদীয় দলের বৈঠক করবে। সেই বৈঠকে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এর মধ্যে রয়েছে স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন। এছাড়াও পর্যায়ক্রমে চিফ হুইপ ও হুইপবৃন্দ এবং সংসদীয় স্থায়ী কমিটিগুলো গঠন করা হবে। আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, শিরিন শারমিন চৌধুরী যে স্পিকার হবেন, এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। ডেপুটি স্পিকার কে হবেন এই নিয়ে নানা জল্পনা কল্পনা চলছে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে তাঁর সিদ্ধান্ত সংসদীয় কমিটিতে জানাবেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।
অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার এবং ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন হবে। এরপর মহামান্য রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেবেন। সাংবিধানিক বিধি অনুযায়ী সংসদের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেন। সে হিসেবে রাষ্ট্রপতির ভাষণ ইতিমধ্যে মন্ত্রিসভায় অনুমোধিত হয়েছে। রাষ্ট্রপতির ভাষণের দুটি ধাপ রয়েছে, একটি পূর্ণাঙ্গ যেটা টেবিলে উথাপিত হবে। আরেকটি সংক্ষিপ্ত, যেটা তিনি পাঠ করবেন। রাষ্ট্রপতির ভাষণের মধ্য দিয়ে সংসদের প্রথম দিনের অধিবেশন সমাপ্ত হবে বলে জানা গেছে। যেহেতু এটা সংসদের প্রথম অধিবেশন, সেজন্য এই অধিবেশন দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে। সংসদে নতুন স্পিকার নির্বাচিত হওয়ার পর কার্যনির্বাহী উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হবে। কার্যনির্বাহী উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে সংসদের আয়ুস্কাল নির্ধারিত করা হবে।
এবার সংসদের একটা উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ঠ্য হলো বিরোধীদল শূন্য একটি সংসদ হচ্ছে। ১৯৭৩ সালের পর এই প্রথম সংসদ অধিবেশন হচ্ছে যেখানে বিরোধীদল প্রায় নেই বললেই চলে। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মহাজোটগতভাবে অংশগ্রহণ করেছিল এবং নির্বাচনে মহাজোটে আওয়ামী লীগের শরিক জাতীয় পার্টি দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে আভির্ভূত হয়েছে। যদিও জাতীয় পার্টি নির্বাচনের পরেই ঘোষণা করে যে তারা বিরোধী দল হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। তারা সরকারের মন্ত্রিসভায় থাকবে না। সেভাবে জাতীয় পার্টি সংসদে বিরোধী দল হিসেবেই থাকবে। এবং জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা সত্যিকারের বিরোধী দলের ভূমিকা সংসদে পালন করতে চায়।
এই নির্বাচনে বিএনপি এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে ৮ জন নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্য থেকে কেউ এখন পর্যন্ত শপথ গ্রহণ করেননি। তবে এই শপথ গ্রহণ নিয়ে এখন জাতীয় ঐক্যের মধ্যে মতানৈক্য দেখা যাচ্ছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দুজন গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, তারা সংসদে যেতে প্রস্তুত।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here