ডার্মা হেলথ কেয়ার পণ্যের গুণগত মান নিয়ে কোনো আপোষ করেনা’

0
23
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর প্রতিবেদক:‘ ডার্মা হেলথ কেয়ার’ দেশের মেডিকেটেড কসমেটিকস খাতে একটি উজ্জ্বল নাম। ২০১১ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি সুনামের সাথে ত্বক ও চুলের পরিচর্যায় ব্যবহৃত প্রেসক্রাইবড পণ্য নিয়ে কাজ করছে। উন্নত মানের কারণে রেজিস্টার্ড ডাক্তার ও ভোক্তাদের কাছেও প্রশংসা কুড়িয়েছে। এসব নিয়েই আলাপচারিতা হলো প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার মো: শহীদুল ইসলামের সাথে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন রফিকুল ইসলাম মিঠু।
ডেইলি গাজীপুর: একান্ত সাক্ষাৎকারে ডার্মা হেলথ কেয়ার এর সিইও শহীদুল ইসলাম বলেন, তার প্রতিষ্ঠান আম্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত উৎস থেকে মেডিকেটেড কসমেটিকস পণ্য আমদানি করে থাকেন। পণের গুণগত মান নিয়ে কোনো প্রকার আপোষ করেননা। ভোক্তার অধিকার সংরক্ষণে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে থাকেন।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ২০১১ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিজস্ব প্রতিনিধিদের মাধ্যমে ত্বক ও চুলের পরিচর্যায় ব্যবহৃত পণ্য বিপণন করে থাকেন। রেজিস্টার্ড ডাক্তাররা গ্রাহকের সমস্যার কথা চিন্তা করে প্রয়োজন মেতাবেক প্রেসক্রাইব করে থাকেন ডার্মা হেলথ কেয়ারের পণ্য।
জনাব শহীদুল বলেন, তিনি তার পণ্যগুলো পর্তুগাল, হংকং, ভারত ও চীন থেকে আমদানি করে থাকেন। সেসব দেশের প্রতিষ্ঠিত ও গবেষণালব্ধ উৎস থেকে এসব পণ্য আমদানি করেন এবং তা ডার্মার নিজস্ব ব্র্যান্ড হিসেবে বাজারে আনেন। সেক্ষেত্রে গ্রাহকের চাহিদা ও পণ্যের গুণগত মান যেনো বজায় থাকে সেজন্য কোয়ালিটি কন্ট্রোলের দিকে অধিক মনোযোগ দিয়ে থাকেন।
তিনি বলেন, ডার্মা হেলথ কেয়ার এর কিছু পণ্য আছে যা আমেরিকার ফুড এন্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) কর্তৃক স্বীকৃত। যেসব উৎস থেকে এই মেডিকেটেড কসমেটিকস আনা হয় তাদের সেই স্বীকৃতি রয়েছে।
ডার্মার পণ্য তুলনামুলক বেশি জনপ্রিয়তার পেছনে আর কোনো কারণ আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, একদিকে পণ্যের ভালো মান, অন্যদিকে দাম সাশ্রয়ী হওয়ায় গ্রাহকের কাছে জনপ্রিয় হয়েছে। ডাক্তারদের কাছ থেকেও আমরা খুব ভালো ফিডব্যাক পাই পণ্যের মান নিয়ে।
ডার্মা হেলথ কেয়ার এর পণ্য কোন কোন ক্ষেত্রে বেশি ব্যবহৃত হয়? তিনি উত্তরে বলেন, মুখে মেসতা, ব্রণ, দাগ, তৈলাক্ত ত্বক, প্রাণহীন চুল সতেজ করা ইত্যাদি প্রয়োজনে বেশি ব্যবহৃত হয়। গ্রাহকদের কাছ থেকে আমরা নিয়মিত ফিডব্যাক নেই, কারণ তাদের সন্তুষ্টিই আমাদের অনুপ্রেরণা।
এই খাতে অন্য আরও অনেক প্রতিষ্ঠান আছে এবং তাদের বিরুদ্ধে অনেক সময় ঢালাও অভিযোগ আসে যে, এসব পণ্যের মান সব সময় ভালো হয়না। উত্তরে তিনি বলেন, দেখুন ভালো মন্দ সব খাতেই আছে, অনেকেই ভালো করছে। অন্যদের বিষয় নিয়ে আমার কোনো মাথা ব্যথা নেই, আমার প্রতিষ্ঠানের ফোকাস হলো যে কোনো মূল্যে আমাদের পণ্যের মান ভালো থাকতে হবে। আমি এক্ষেত্রে কোনো আপোষ করিনা। যারাই ব্যবসা করুন এই খাতে তাদের মনে রাখতে হবে যে, পণ্যের মান খারাপ হলে গ্রাহক মুখ ফিরিয়ে নিবেই। সেক্ষেত্রে তার বিনিয়োগ সফল হবেনা। তাই আমি আহবান জানাব, গ্রাহক ঠকিয়ে কোনো ব্যবসা করার মানসিকতা যদি কারো থেকে থাকে তাহলে তিনি নিজেই ঠকবেন।
জনাব শহীদুল বলেন, তার প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই এর অনুমোদন নিয়ে ব্যবসা করে। আমি সকল অনুমোদন নিয়েই পণ্য আমদানি করে থাকি এবং তা বিপণন করে থাকি। যদি আইন কানুন না মেনে এবং স্বনামধন্য আন্তার্জাতিক উৎস থেকে পণ্য না আনতাম, তাহলে এতদিন সুনামের সাথে এই ব্যবসা করতে পারতামনা। ভোক্তার অধিকার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, কারণ ভোক্তা খুশি থাকলে আমার ব্যবসা হবে, না হলে হবেনা। তাছাড়া রেজিস্টার্ড ডাক্তারদের প্রেসক্রিপশনের ভিত্তিতেই মুলত আমার পণ্য ব্যবহার করে থাকেন ভোক্তারা। তাই তাদের আস্থার জায়গাটি অনেক শক্ত ভিতের উপর প্রতিষ্ঠিত।
তিনি বলেন, ডার্মা হেলথ কেয়ার এর পণ্য বিভিন্ন ফার্মেসী ও ক্ষেত্রবিশেষে বড় বড় কসমেটিকসের দোকানে পাওয়া যায়।
জনাব শহীদুল বলেন, তিনি কেবল নিজের জন্য ব্যবসা করেননা, বরং একজন উদ্যোক্তা হিসেবে তৃপ্তি পান যখন দেখেন অনেক কষ্টে গড়া প্রতিষ্ঠানটিতে বেকার তরুণদের চাকরি দিতে পারছেন এবং তাদের সংসার চলছে এখানকার আয় দিয়ে।
‘আমারতো এই সমাজের প্রতি দায় শোধ করার দায়িত্ব আছে, এই রাষ্ট্র আমাকে পড়িয়েছে, শিখিয়েছে। তাই যখন তার কিছুটা ফেরত দিতে পারি তখন খুব ভালো লাগে।’

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty − 10 =