“পরিধি ছাড়িয়ে মধুমিতা ধূত জীবনানন্দ সভা গৃহে”

0
120
728×90 Banner

বিউটি দাশ: পরিধি ছাড়িয়ে সাহিত্য পত্রিকার ও প্রকাশনার উদ্যোগে ১৫ অক্টোবর রোববার কলকাতা জীবনানন্দ সভাগৃহে সন্ধ্যা পাঁচটা থেকে রাত নটা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় এক বর্ণাট্য অনুষ্ঠান। কবিতা- গানে মুখরিত সন্ধ্যায় পরিধি ছাড়িয়ে পত্রিকা এবং পত্রিকা গোষ্ঠীর কাব্য সংকলন বিশ্বরূপার মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান।
এই অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিখ্যাত কবি এবং শিশু সাহিত্যিক শ্রীযুক্ত পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মহাশয় এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিখ্যাত সাহিত্যিক শ্রীযুক্ত রামকিশোর ভট্টাচার্য মহাশয়। অনুষ্ঠানে পত্রিকার সম্পাদিকা মধুমিতা ধূত স্বাগত ভাষণে পত্রিকা এবং সংকলন প্রকাশের বিভিন্ন অসুবিধার কথা ব্যক্ত করেন। ভবিষ্যতে এই অসুবিধাগুলি মোকাবেলা করে কিভাবে পুনরায় পত্রিকা এবং সংকলন প্রকাশ করা যায় তার পন্থার কথা তিনি সুচারুভাবে নিজের বক্তব্যে ফুটিয়ে তোলেন। আগামী দিনে পত্রিকা নিয়মিত ভাবে প্রকাশিত হবে এ ব্যাপারে তিনি আশা রাখেন সমস্ত উপস্থিতি মানুষের কাছে। উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশ করেন স্নেহা দাশ।
অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রীযুক্ত বরুন চক্রবর্তী মহাশয়, শ্রীযুক্ত চন্দ্রনাথ বোস মহাশয়, শ্রীযুক্ত শঙ্কর তালুকদার মহাশয়, শ্রীমতী বিউটি দাশ মহাশয়া, শ্রীমতী রাখি ব্যানার্জী মহাশয়া প্রমুখ। পত্রিকা এবং সংকলনটিতে শতাধিক কবির কবিতা স্থান পেয়েছে।দেশের কবিদের কবিতা ছাড়াও বাংলাদেশের আব্দুর রশিদ চৌধুরী, মুহাম্মদ আমির হোসেন, এথেন্স, গ্রীসের তানভীর আজিমি, ইংল্যান্ডের কংকা চৌধুরী গুপ্তা প্রভৃতি আন্তর্জাতিক কবির কবিতা স্থান পেয়েছে। সে দিক থেকে বলা যেতে পারে যে পত্রিকা এবং সংকলনটি প্রকৃতপক্ষে একটি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নীত হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রাখে এবং এক্ষেত্রে পত্রিকাটি বাংলাদেশের মানুষদের খুব কাছের পত্রিকা হয়ে উঠবে এটা আশা করা যেতেই পারে। কবিরা তাদের নিজেদের কবিতা পাঠ করেন এবং প্রত্যেকে ভবিষ্যতে এই পত্রিকার সঙ্গে থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন। প্রত্যেক কবি এবং লেখককে মহালয় পরের দিন বলে অন্য ধরনের দুর্গা মূর্তি প্রদান করা হয় পত্রিকার পক্ষ থেকে যা কবিদের মধ্যে যথেষ্ট ভালোলাগার পরিচায়ক বলে মনে হয়েছে। পত্রিকায় যে সংখ্যক লেখা স্থান পেয়েছে আগামী দিনে তার থেকে অনেক বেশি লেখা স্থান পাবে বলে পত্রিকার পক্ষ থেকে জানানো হয়। এই পত্রিকা প্রকাশ উপলক্ষে উপস্থিত সমস্ত কবি এবং দর্শকদের মধ্যে যথেষ্ট উন্মাদনা লক্ষ্য করা যায়।পুষ্পক মন্ডল,ধ্রুবব্রত দত্ত, পান্না দাস এবং দীপ্তি মুখার্জীর শুভেচ্ছা বার্তাও অনুষ্ঠানে পাঠ করা হয়। এই অনুষ্ঠানে নিখিলেশ বিশ্বাস রচিত শ্রুতিনাটক আমার গোপাল পত্রিকা গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে পরিবেশন করা হয় যেখানে অভিনয় করেছেন সম্পাদিকা মধুমিতা ধূত, সেখ মনিরুদ্দিন এবং প্রলয় দাসগুপ্ত যা উপস্থিত দর্শকদের দ্বারা যথেষ্ট অভিনয়ের এবং নাট্য গুণের অত্যন্ত প্রশংসিত হয়। অনুষ্ঠানের শেষ লগ্নেও প্রেক্ষাগৃহে পরিপূর্ণ দর্শক ছিলন। এটা অবশ্যই একটা সাহিত্য সন্ধ্যার পক্ষে যথেষ্ট ইতিবাচক দিক বলে মনে হয়।পরিশেষে বলা যেতে পারে যে প্রকৃতপক্ষে একটি সুন্দর কবিতা সন্ধ্যা উপহার দেওয়ার জন্য অবশ্যই অভিনন্দন প্রাপ্য পরিধি ছাড়িয়ে সাহিত্য পত্রিকার। সামাজিক এই অবক্ষয়ের যুগে এত সুন্দর যে সাংস্কৃতিক পরিবেশ উপহার দেওয়া যায় তা বোধহয় এই অনুষ্ঠানটা না দেখলে বোঝা যেত না। উপস্থিত সবাই এই পত্রিকাটির সাফল্য কামনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here