‘‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনৈতিক অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণ ’’

0
88
728×90 Banner

ডেইলি গাজীপুর ( সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ): ১ জুন মঙ্গলবার, সকাল ১১.০০ ঘটিকায়, জাতীয় প্রেসক্লাবেরমওলানাআকরাম খাঁ হলে, বাংলাদেশ প্রতিবন্ধীউন্নয়নসংস্থা (বিপিইউএস) এর আয়োজনে‘‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনৈতিকঅংশগ্রহণনিশ্চিকরণের দাবিতেসংবাদ সম্মেলন”অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনেসভাপতিত্ব করেনবাংলাদেশ প্রতিবন্ধীউন্নয়নসংস্থা (বিপিইউএস) এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহীপরিচালকএবংরাষ্ট্রিয়পুরস্কার প্রাপ্ত ব্যক্তি জনাববদিউলআলমএবংসংবাদ সম্মেলনটিসঞ্চলনাকরেন‘‘ইকুয়ালরাইটস ইন একশনফান্ড” এর প্রকল্পসমন্বয়কারীজনাবমনোয়ারুলইসলাম,বাংলাদেশ প্রতিবন্ধীউন্নয়নসংস্থা (বিপিইউএস) ।
ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিকইনিষ্টিটিউট (এনডিআই) এর সহযোগীতায়, বাংলাদেশ প্রতিবন্ধীউন্নয়নসংস্থা (বিপিইউএস) ‘‘ইকুয়ালরাইটস ইন একশনফান্ড”শীর্ষকএকটিপ্রকল্পবাংলাদেশের ঢাকা ও বরিশাল জেলায়বাস্তবায়নকরছে। প্রকল্পেরউদ্দেশ্য; প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনৈতিককর্মকান্ডেঅংশগ্রহন ( (Political Participation of Persons with Disabilities ) ।
বাংলাদেশ প্রতিবন্ধীউন্নয়নসংস্থা (বিপিইউএস)প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকারপ্রতিষ্ঠা, দক্ষতাবৃদ্ধি,অর্থনৈতিকউন্নয়ন, একীভূতশিক্ষা,প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য রাষ্ট্রের বিদ্যমানআইন ও পরিকল্পনাবাস্তবায়নেভূমিকারাখাসহপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সার্বিকউন্নয়নে ১৯৯১ সন থেকে কাজকরেআসছে।
বাংলাদেশের রাজনীতিতেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অংশগ্রহন নেইবল্লেইচলে । রাজনৈতিক দলগুলোর কেন্দ্রীয় ও স্থানীয়কমিটিসমূহে প্রতিবন্ধীনারী ও পুরুষদের অর্ন্তভুক্তি নেই। বাংলাদেশের প্রচলিতআইনেরাজনৈতিক দলের কমিটিতেকমপক্ষে ৩৩% পদ নারীদের জন্য সংরক্ষিতরাখারবিধানরয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক দলে নারীদের জন্য সংরক্ষিত এ সকল পদে প্রতিবন্ধীনারীদেরউপস্থিতিআমরা দেখতে পাচ্ছিনা। আমরাআরওউদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে জাতীয়সংসদে নারীদের জন্য সংরক্ষিতআসনে অদ্যাবধী কোনোপ্রতিবন্ধীনারীকেসংসদ সদস্য পদে মনোনীতকরাহয়নি।জাতীয়নারীউন্নয়ননীতি ও এর কর্ম পরিকল্পনায়প্রতিবন্ধীনারীদের জন্য ২% সংরক্ষিতআসন থাকারবিধান থাকলেওতাপূরণে কোন উদ্যোগ নেই। ভোটারতালিকায় অর্ন্তভুক্তির ক্ষেত্রেমানসিক অসুস্থতাজনিতপ্রতিবন্ধী ব্যক্তি ব্যতিতঅন্যান্য প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কোনোআইনীবাঁধা নেইবরংপ্রচলিতবিধিবিধান মোতাবেক গুরুতরপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাড়িগিয়েপ্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহসাপেক্ষে ভোটার তালিকাভূক্ত করারকথাবলাহয়েছে। কিন্তু বাস্তবেঅনেকপ্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিশেষকরেবাক্ ও দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীসহ চরম প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ভোটারতালিকায় অর্ন্তভুক্তি হতেবাদ পড়েযাচ্ছে।উপরোন্তু আমরাপ্রায়ইলক্ষ্য করে থাকিযাদের সেরিব্রালপালসি, নিউরো ডেভোল্পেমেন্টালডিজঅর্ডারঅথবাশারিরীকক্ষতিগ্রস্থ্যতারকারণেযাদেরফিংগারপ্রিন্টদিতেসমস্যা হয় তারাএনআইডিকরতে গেলেবিভিন্ন বৈষম্য ও বাঁধার সম্মুখীণ হচ্ছেন। এর অন্যতমকারণনির্বাচনসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতিবন্ধীতাসম্পর্কে ধারনানা থাকাবাপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উপযোগীপ্রচারপ্রচারনারঅভাব ।
প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ এর আইনেরধারা ১৬ এর (ন)-তে বলাহয়েছে, “জাতীয়পরিচয়পত্রপ্রাপ্তি, ভোটারতালিকায় অর্šÍভুক্তি, ভোটপ্রদানএবংনির্বাচনেঅংশগ্রহণ”প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার।
জাতিসংঘপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার সনদে ২৯ নং ধারায়বলাহয়েছেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তি রাজনৈতিকজীবনে ওজনজীবনেঅংশগ্রহণনিশ্চিতকরতেহবে।
আবার, টেকসইউন্নয়নলক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) ১০ লক্ষ্য -এর টারগেট ২-এবলাহয়েছে ২০৩০ সালেরমধ্যে বয়স, জেন্ডার, প্রতিবন্ধিতা, গোত্র, জাতীয়তা, ধর্ম বা অর্থনৈতিকঅথবা অন্য যে কোনধরনেরবিন্যাসব্যাতিরেকেসকলেরসামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকসক্ষমতাবৃদ্ধি ও অর্ন্তভুক্তি নিশ্চিতকরা।
বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনীতিতেঅংশগ্রহণএবংজাতীয় ও স্থানীয়সরকারনির্বাচনেপ্রার্থী হওয়ারঘটনাবিরল। বাংলাদেশের মোটজনসংখ্যার ১০ ভাগমানুষ কোননা কোনভাবেপ্রতিবন্ধীতারশিকারসুতরাং এ বৃহৎজনগোষ্ঠীকেবাদ দিয়েঅথবাতাদেরসকল ক্ষেত্রে অংশ গ্রহননিশ্চিতনাকরে দেশের সার্বিকউন্নয়ন সম্ভব নয়।
এমতাবস্থায়, বিপিইউএস ‘‘ ইকুয়ালরাইটস ইন একশনফান্ড”শীর্ষকপ্রকল্পেরমাধ্যমে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনীতিতেঅংশগ্রহননিশ্চিতকরার জন্য নানাভাবে সর্বস্তরেরজনগনকেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তির রাজনৈতিকঅধিকারসম্পর্কে সচেতনকরারকাজকরেযাচ্ছে ।
পরিশেষেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রতিষ্ঠানসমূহরেউপস্থিত প্রতিনিধিবৃন্দ বিভিন্নসুপারিশসরকারের সম্মুখেতুলেধরেন।
সুপারিশসমূহহলোঃ
১) প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষাআইন ২০১৩,সিআরপিডি’রএবংটেকসইউন্নয়নলক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) -এরআলোকেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের রাজনৈতিককর্মকান্ডেঅংশগ্রহণেরসুযোগনিশ্চিতকরতেহবে।
২) রাজনৈতিক দলের জাতীয়পর্যায় থেকে শুরুকরে জেলা, উপজেলা ও শহরকমিটিতেপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অংশগ্রহণনিশ্চিতকরতেহবে । কমপক্ষে ৩% পদ স্থানীযসরকারপ্রতিষ্ঠান ও মহানজাতীয়সংসদে প্রতিবন্ধীনারী ও পুরুষের জন্য সংরক্ষিতকরতেহবে।
৩) ভোটারতালিকায়বৈষম্যহীনভাবে ১৮ বছর উর্দ্ধসব ধরনেরপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অর্ন্তভুক্তিসহ জাতীয়পরিচয়পত্রসরবরাহএবং ভোটপ্রদানেপ্রতিবন্ধীবান্ধবপরিবেশনিশ্চিতকরতেহবে ।
৪) প্রতিবন্ধী ভোটারদের জন্য পোস্টালও অনলাইনভোটএবংইভিএমপদ্ধতিতে ভোট দানের জন্য অডিওব্যবস্থা সংযুক্ত করতেহবে।

Print Friendly, PDF & Email
728×90 Banner

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here